ঢাকায় ফার্নিচারের বোর্ড কেনার জন্য এসে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়েন এক পুলিশ পরিদর্শক। শফিকুল ইসলাম (৫২) নামের ওই পুলিশ পরির্দশক গাজীপুর পুলিশ সুপার কার্যালয়ে কর্মরত আছেন। বুধবার (৩ আগস্ট) দুপুর তিনটার দিকে তাকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসা হয়।

সালাউদ্দিন জানান, বাসার জন্য কিছু আসবাবপত্র কিনতে আশকোনা থেকে বিআরটিসি বাসে কারওয়ান বাজার আসছিলেন শফিকুল ইসলাম। ওই বাসে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়েন তিনি। তারা শফিকুল ইসলামের সঙ্গে থাকা টাকা-পয়সা নিয়ে যান। তবে শফিকুলের সঙ্গে থাকা মোবাইল ফোন রেখে যান। ওই মোবাইল থেকেই বাসের এক যাত্রী ফোন করে তার স্ত্রীকে বিষয়টি জানান। এরপর আমরা কারওয়ান বাজার এসে শফিকুলকে উদ্ধার করে ঢামেকে নিয়ে আসি।

পুলিশ পরিদর্শকের স্ত্রী শামীমা বেগম বলেন, সকালে দক্ষিণ খানের আশকোনা থেকে কাওরান বাজারের উদ্দেশ্যে বাসার ফার্নিচারের জন্য বোর্ড ও কিছু কবজা কেনার জন্য রওনা করে। বাসা থেকে বের হওয়ার সময় এক বান্ডিল টাকা নিয়ে বের হয়েছিল। তবে তার কাছে মোট কত টাকা ছিল সেটা বলতে পারছি না। পরে আমরা খবর পেয়ে ঢাকা মেডিকেলে আসি। তার কাছ থেকে সব টাকা নিয়ে গেলেও অজ্ঞান পার্টির লোকরা মোবাইল দুটি নেয়নি। তিনি আরও বলেন, আমার স্বামী গাজীপুর পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে পরিদর্শক হিসেবে কর্মরত আছেন।

এ বিষয়ে ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া বলেন, পুলিশের এক পরিদর্শক বাসে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়েছিলেন। পরে তার পাকস্থলী পরিষ্কার করে চিকিৎসক মেডিসিন বিভাগে ভর্তি দিয়েছেন।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: