আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও প্রার্থী হবেন বলে জানিয়েছেন আলোচিত ইসলামি বক্তা মুফতি গিয়াস উদ্দিন আত-তাহেরী। দেশ, জাতি ও ইসলামের জন্য কাজের অংশ হিসেবেই নির্বাচন করতে চান বলে জানান তিনি। গতকাল বৃহস্পতিবার (২১ এপ্রিল) একটি বেসরকারি টেলিভিশনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তাহেরী একথা বলেন।

তাহেরী বলেন, আমি গত নির্বাচন করেছি, আসলে জনগণের খেদমত করা এটা একটা সৌভাগ্যের ব্যাপার। আমাদের চিন্তা ও আশা আকাঙ্ক্ষা ছিল বলেই আমি নির্বাচন করেছি এবং ভবিষ্যতেও আমার সেই ধারাবিহকতা থাকবে। মানুষের সেবা করা, মানুষের পাশে থাকা, আর্তমানবতার সেবায় কল্যাণে কথা বলা, এই মানবতাই ধর্ম। ইসলাম অনেক ক্যাটাগরিতে রয়েছে। মানবতা, ভ্রাতৃত্ব, একতা, শান্তিশৃঙ্খলা সর্বক্ষেত্রেই ইসলামের অনুশাসন খুবই প্রয়োজন আছে। আমিও চাই রাজনৈতিক অঙ্গনটাও যেন ইসলামী ভাবধারায় প্রতিষ্ঠিত হয় এবং আরও যেন সুদৃঢ় হয়। সেজন্য আমার সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে ইনশাআল্লাহ।

এর আগে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল ও আশুগঞ্জ) থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ডাব প্রতীকে নির্বাচন করে পরাজিত হন তাহেরী। তিনি পেয়েছিলেন ৩ হাজার ৫ ভোট। এ আসনে ৮৩ হাজার ৯৯৭ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছিলেন বিএনপির উকিল আবদুস সাত্তার ভূঁইয়া। তবে এবারও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে লড়বেন, নাকি কোনো রাজনৈতিক দলের প্রার্থী হবেন, সে বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু বলেননি তিনি।

এসময় গিয়াস উদ্দিন আত-তাহেরী বলেন, আমার বক্তব্যকে খণ্ডিত ও বিকৃতভাবে উপস্থাপন করে আসছে এক শ্রেণির ইউটিউবার। দীর্ঘদিন ধরেই তারা এটা করে আসছে। এ ব্যাপারে আমি শক্ত পদক্ষেপ নেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি। শিগগিরই ওইসব ইউটিউবাররা আইনের মুখোমুখি হবে, ইনশাআল্লাহ।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: