যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ইয়েমেনে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন সামরিক অভিযানের পক্ষে ওয়াশিংটনের সমর্থন বন্ধের ঘোষণা দিয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রের জানিয়েছে যে, তারা যুদ্ধবিধ্বস্ত ইয়েমেনে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের ‘অপরাধমূলক অভিযান’ সমর্থন করবে না। ইয়েমেনে গত ৬ বছর ধরে চলা যুদ্ধ বন্ধে ওয়াশিংটন কার্যকর পদক্ষেপ নিচ্ছে। গৃহযুদ্ধ অবসানে তার প্রশাসন সচেতন। বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় প্রথমবারের মতো পরিদর্শনে গিয়ে কূটনীতিকদের উদ্দেশে এ কথা বলেন বাইডেন। তিনি বলেন, মানবিক বিপর্যয় সৃষ্টি করেছে এই যুদ্ধ। এর অবসান হতেই হবে।

বাইডেন বলেন, বিভিন্ন দেশে ইরানের বাহিনীর সরবরাহকৃত অস্ত্র দ্বারা সৌদি আরব মিসাইল ও ড্রোন হামলা এবং অন্যান্য হুমকির শিকার হয়। আমরা সৌদি আরবের সার্বভৌমত্ব, আঞ্চলিক অখণ্ডতা এবং তাদের জনগণকে রক্ষায় সমর্থন ও সহযোগিতা অব্যাহত রাখবো।

এর আগে, প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর রিয়াদের সঙ্গে ওয়াশিংটনের সম্পর্ক ‘পুনর্নির্মাণের’ অঙ্গীকার করেছিলেন বাইডেন। দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই ট্রাম্প প্রশাসনের প্রধান প্রধান বিভিন্ন নীতি ও সিদ্ধান্ত পরিবর্তন বা পর্যালোচনা করতে একের পর এক নির্বাহী আদেশ জারি করেন নতুন এই মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

ইয়েমেনে যুদ্ধে সৌদি জোটের ভূমিকা নিয়ে নীরব ভূমিকা পালন করে আসছিলেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ২০১৫ সাল থেকে শুরু হওয়া ওই গৃহযুদ্ধে হাজার হাজার নারী ও শিশুসহ বহু মানুষের মৃত্যু হয়েছে। বাস্তুচ্যুত হয়েছে লাখ লাখ মানুষ। আর স্মরণকালের ভয়াবহ দুর্ভিক্ষের কবলে পড়েছে ইয়েমেন।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: