এখনো পিপিই অতটা দরকার নেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

দেশে পারসোনাল প্রোটেকশন ইকুইপমেন্টের (পিপিই) এখনো তেমন প্রয়োজন নেই বলে মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। সোমবার (২৩ মার্চ) স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ব্রিফিংয়ে ডাক্তারদের ব্যক্তিগত নিরাপত্তা সরঞ্জাম (পিপিই) নেই, এ বিষয়ক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘চীনে যখন করোনা ভাইরাস ধরা পড়েছিল, তখন তাদের কাছেও পিপিই ছিল না। এখনো আমাদের পিপিই অতটা দরকার নেই।’
স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের আগে থেকেই প্রস্তুতি ছিল বলেই ২০ হাজার মানুষকে কোয়ারেন্টিন করেছি।’ ‘তিন মাস আগে থেকেই আমরা ল্যাব তৈরির পরিকল্পনা নিয়ে রেখেছিলাম’, যোগ করেন তিনি।

গণমাধ্যমের উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনারা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের জন্য অনেক লিখেছেন, চাপ তৈরি করেছেন। কিন্তু স্কুল বন্ধ দেওয়ার পরে আমরা কী দেখলাম? সবাই বেড়াতে চলে গেল। আপনারা বেড়াতে যাওয়ার বিষয়টি নিয়ে লিখলেন না। স্কুল বন্ধ দেওয়া হয়েছিল ঘরে থাকার জন্য, বেড়াতে যাওয়ার জন্য না।’

মন্ত্রী বলেন, ‘ল্যাব আমাদের আাছে, কিন্তু এখন বাড়তি ল্যাব করছি। কাজেই কোন ল্যাবের টেস্ট বাদ নেই। ইতোমধ্যেই (করোনা) ২৫০ টেস্ট করা হয়েছে। এখন একে অপরকে ব্লেইম করলে হবে না।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, কার্যকর ব্যবস্থা নেয়ার কারণে সারাদেশে এখন প্রায় ১৮ হাজার মানুষ সেলফ কোয়ারেন্টাইনে আছেন। করোনো শনাক্তকরণে এক লাখ কিট আমাদের হাতে আছে। কিট বা সরঞ্জাম নেই- এ বিষয় নিয়ে মানুষকে আতঙ্কিত করা ঠিক হবে না।

তিনি দাবি করেন, অন্যান্য দেশের চেয়ে বাংলাদেশের অবস্থা অনেক ভালো। আমরা যদি সেফল কোয়ারেন্টাইন বা প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন যথাযথভাবে নিতে পারি তাহলে ভয়ের কিছু নেই, করোনা ছড়াবে না।

সরকারের নেয়া বিভিন্ন উদ্যোগের কথা জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, আমরা আগে থেকেই প্রস্তুতি নিয়েছি। জেলা পর্যায়ে ডিসি, এসপি, ইউনিয়ন পর্যায়ে চেয়ারম্যান, মেম্বাররা কাজ করছেন। সিটি করপোরেশনের মেয়র, কমিশনাররাও কাজ করছেন।

     আরো পড়ুন....

পুরাতন খবরঃ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  

ফেসবুকে আমরাঃ