ঝিনাইদহের শৈলকূপায় সাপের কামড় খাওয়ার পর দুটি সাপ ধরে চিকিৎসা নিতে আসেন এক তরুণ। গত শনিবার শৈলকূপার বিজুলিয়া গ্রামের আলামিন বিশ্বাস (২৫) নামের যুবককে সাপে কামড় দেয়। তবে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন যুবক আলামিন এখন শংকামুক্ত বলে নিশ্চিত করেছেন চিকিৎসক। তিনি বিজুলিয়া গ্রামের মহসিন বিশ্বাসের ছেলে।

মঙ্গলবার দুপুরে শৈলকূপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসারত আলামিন জানান, ঈদের আগের দিন শনিবার বেলা ১১টার দিকে তাদের গ্রামের একটি ইটের গাদার মধ্যে গোখরা সাপ দেখতে পায়। ওই ইটের গাদা থেকে বের করে সাপ মারতে গেলে দংশন করে। সঙ্গে সঙ্গে সাপ দুটি ধরে দ্রুত হাসপাতালের জরুরি বিভাগে চলে আসি। চিকিৎসক অ্যান্টিভেনম প্রয়োগ করেন।

দুইটি সাপ ধরে হাসপাতালে নিয়ে আসার কারণ সম্পর্কে তিনি জানান, চিকিৎসক যাতে চিনতে পারেন কোন জাতের সাপ আমাকে কামড় দিয়েছে। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকলেও তিনি সুস্থ আছেন বলেও জানান।

শৈলকূপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক ডা. সুজায়েত হোসেন জানান, বিজুলিয়া গ্রামের ওই যুবককে সাপে দংশনের পর দুটি সাপ ধরে নিজেই হাসপাতালে হাজির হওয়ার ঘটনাটি সত্য। তবে বর্তমানে তিনি সুস্থ আছেন।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: