কুমিল্লায় বর্ধিত সভায় তৃণমূল নেতাদের স্বচ্ছ ভোটে নির্বাচিত প্রার্থীকে দেওয়া হয়নি নৌকার মনোনয়ন। জেলার বরুড়া উপজেলার ৩নং খোশবাস উত্তর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের তৃণমূলের নেতাদের সরাসরি ভোটে নির্বাচিত প্রার্থী উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো. ফরহাদ হোসেন দলের মনোনয়ন থেকে বঞ্চিত হয়েছেন।

গত ১৯ অক্টোবর ওই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে দলের একক চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন ফরহাদ হোসেন। কিন্তু ৩০ অক্টোবর দলের টিকিট নিয়ে এলাকায় আসেন তৃণমূলের ভোটে পরাজিত প্রার্থী নাজমুল হাসান। এতে দলের অঙ্গ-সংগঠনের নেতাকর্মীদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

এদিকে কেন্দ্রের নির্দেশনা অনুসারে কাউন্সিলের মাধ্যমে স্বচ্ছভাবে প্রার্থী চূড়ান্ত করার পরও একজন প্রার্থী মনোনয়ন বঞ্চিত হওয়ায় সচেতন মহলে ব্যাপক সমালোচনা চলছে।

জানা যায়, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এবং সাধারণ সম্পাদক সাবেক রেলপথমন্ত্রী মুজিবুল হক এমপির নির্দেশে গত ১৯ অক্টোবর জেলার বরুড়া উপজেলার ৩নং খোশবাস উত্তর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে বরুড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাসিমুল আলম চৌধুরী নজরুল এমপি, সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন লিংকনসহ উপজেলা ও ইউনিয়নের সব নেতা উপস্থিত ছিলেন। এ সময় ওই ইউপির চেয়ারম্যান প্রার্থী চূড়ান্ত করার জন্য তৃণমূল নেতাদের ভোটের আয়োজন করা হয়।

স্বচ্ছ এ ভোটে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো. ফরহাদ হোসেন ৪৫ ভোট পান। আর তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নাজমুল হাসান পেয়েছেন ৪০ ভোট। এ সময় ওই বর্ধিত সভায় দলের একক প্রার্থী হিসেবে ফরহাদ হোসেনের নাম ঘোষণা করা হয়। পরে ভোটের ফলাফল রেজুলেশনের মাধ্যমে জেলা আওয়ামী লীগের কাছে পাঠানো হয়।

এদিকে তৃণমূলের ভোটের ফল অনুসারে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সম্পাদক স্বাক্ষরিত কপি কেন্দ্রে এবং মনোনয়ন বোর্ডে প্রেরণ করা হয়। এতে ফরহাদ হোসেনকে একক প্রার্থী হিসেবে সুপারিশ করা হয়। কিন্তু ৩০ অক্টোবর দলের মনোনয়নের চিঠি পান তৃণমূলের ভোটে পরাজিত প্রার্থী নাজমুল হাসান। রোববার এ নিয়ে ফেসবুকে সমালোচনা ভাইরাল হয়। এলাকায় নেতাকর্মীদের মাঝেও ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে।

অপরদিকে ওই ইউপির দলীয় প্রার্থী নিয়ে দলের মধ্যমপর্যায়ের কোথাও কোনোপ্রকার জালিয়াতি হয়ে থাকতে পারে বলে আশঙ্কা করেছেন মনোনয়নবঞ্চিত প্রার্থী সাবেক উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি ফরহাদ হোসেন। তিনি বিষয়টি নিয়ে দলের সাধারণ সম্পাদকসহ কেন্দ্রীয় নেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী বলেন, দলের সভানেত্রীর সিদ্ধান্ত অনুসারে আমরা তৃণমূল থেকে ভোটের মাধ্যমে প্রার্থী চূড়ান্ত করেছি, কিন্তু কী কারণে প্রার্থী বদল করা হলো তা বোধগম্য নয়।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা একেএম শাহজাহান বলেন, আমাদের তৃণমূলের দাবি এই প্রার্থী পরিবর্তনের মাধ্যমে তৃণমূলের ভোটে নির্বাচিত প্রার্থী ফরহাদ হোসেনকে দলের মনোনয়ন দেওয়া হোক।

সূত্রঃ যুগান্তর

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: