খুলনায় গুদামে অতিরিক্ত ৭২ মেট্রিক টন সয়াবিন তেল মজুদ করায় ৩ প্রতিষ্ঠানকে ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। বাজারে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে অধিক মুনাফার জন্যই বিপুল পরিমাণ তেল মজুদ রেখেছিল প্রতিষ্ঠানগুলো। আজ বৃহস্পতিবার (১২ মে) দুপুরে খুলনার বড় বাজারে র‍্যাব ও জেলা প্রশাসন যৌথভাবে এ অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানের নেতৃত্ব দেন খুলনা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দেবাশীষ বসাক।

অভিযানে সার্বিক সহায়তা করেছেন র‍্যাব-৬-এর সদস্যরা। র‍্যাবের সদর কোম্পানি কমান্ডার এসপি আল আসাদ বিন মাহফুজ এ সময় উপস্থিত ছিলেন। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দেবাশীষ বসাক বিডি২৪লাইভকে বলেন, অভিযানে তিন প্রতিষ্ঠানে অতিরিক্ত ৭২ মেট্রিক টন সয়াবিন তেল পাওয়া যাওয়ায় ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সোনালী এন্টারপ্রাইজে ২৬ হাজার ৭৮০ লিটার সয়াবিন ও ৩১ হাজার ৮০০ লিটার পাম অয়েল মজুত পাওয়া যায়। এর দায়ে প্রতিষ্ঠানটির স্বত্বাধিকারী প্রদীপ সাহাকে ৯০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

সাহা ট্রেডার্সে ৩১ হাজার ৬০০ লিটার সয়াবিন ও ৬৩ হাজার ৩০০ লিটার পাম অয়েল তেল মজুত পাওয়া যায়। এর দায়ে প্রতিষ্ঠানটির স্বত্বাধিকারী দিলিপ কুমার সাহাকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এছাড়া রণজিত বিশ্বাস অ্যান্ড সন্সে ৯ হাজার ৫৮০ লিটার সয়াবিন ও ৫৯ হাজার ৫৬০ লিটার তেল মজুত পাওয়া যায়। এর দায়ে প্রতিষ্ঠানটির স্বত্বাধিকারী অজিত বিশ্বাসকে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

র‌্যাব ৬ এর পুলিশ সুপার আল আসাদ মো. মাহফুজুল ইসলাম বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পেরে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। সরকারি নিয়ম নীতি উপেক্ষা করে খুলনার ব্যবসায়ীরা বাজারে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করছে। ভবিষ্যতে যেন তারা এমন সংকট তৈরি করতে না পারেন এজন্য তাদের জরিমানা করা হয়েছে। জনস্বার্থে এই অভিযান চলবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: