মায়ের কাছে মোটরসাইকেল কেনার টাকা চেয়ে না পেয়ে গেল ১ সেপ্টেম্বর শেরপুরে আত্মহত্যা করেছে এক তরুণ। মাত্র ১৯ বছর বয়সে বেছে নিয়েছে এই পথ। আর মৃত্যুর আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে দিয়ে গেছেন একটি স্ট্যাটাস। যাতে লেখা, ‘সবাই মাফ করে দিয়েন, চলে যাচ্ছি নেটওয়ার্কের বাইরে, অনেক স্বপ্ন ছিল, কিন্তু হায়াত কম। কি আর করার…’ উপজেলার গোসাইপুর ইউনিয়নের শংকরঘোষ এলাকায় ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যার ওই ঘটনা ঘটে।

রেদোয়ান স্থানীয় ফজলুল করিমের ছেলে এবং শেরপুর শহরের ডা. সেকান্দর আলী কলেজের বিজ্ঞান বিভাগের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র ছিল। খবর পেয়ে বুধবার সকালে নিহতের লাশ উদ্ধার করে থানা-পুলিশ। মৃতের পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রেদোয়ান আহমেদ কয়েকদিন যাবত তার মা রেখা আক্তারের কাছে মোটরসাইকেল কেনার টাকা চেয়ে আসছে। তার মা টাকা দিতে অস্বীকার করায় সে কিছুদিন যাবত হতাশায় ছিল এবং নিজের ফেসবুক ওয়ালে হতাশা প্রকাশ করে বিভিন্ন পোস্ট শেয়ার ও স্ট্যাটাস দিচ্ছিল।

সর্বশেষ মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১২ টা ৩৪ মিনিটে একটি আবেগঘন স্ট্যাটাস দেয় এবং রাতের কোন একসময় বাড়ির পাশে কাঠাল গাছের ডালের সাথে গলায় রশি বেঁধে ঝুলে আত্মহত্যা করে। পরে সকালে আশপাশের লোকজন তাকে ঝুলতে দেখে থানায় খবর দেয়।

এ ব্যাপারে শ্রীবরদী থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আবুল হাসেম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ওই ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা রুজু হয়েছে। তবে আবেদনের প্রেক্ষিতে নিহতের পরিবারের কাছে বিনা ময়নাতদন্তে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: