ডেস্ক রিপোর্টঃ ভাতিজির ‘মাঙ্গলিক দোষ’ রয়েছে। আর এই দোষ না কাটালে বিবাহিত জীবনে তো সমস্যা হবেই এমনকি তার বাবার মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। এভাবে ব্ল্যাক মেইল করে ওই ভাতিজিকে টানা ৪ বছর ধরে ধর্ষণ করল তার এক চাচা।

এমন ন্যাক্কারজনক কাজটি করেছে ভারতের দিল্লির এক ব্যক্তি।

২৩ বছর বয়সী ওই বিবাহিত তরুণী পুলিশকে জানিয়েছেন, তার ৪ বছরের অসহ্য যন্ত্রণার কথা।

নির্যাতিতা তরুণী জানায়, তার মাঙ্গালিক দোষ রয়েছে। আর সেই দোষ না কাটালে তার মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে বলে ভয়-ভীতি দেখায় তার এক চাচা। এখানেই শেষ নয়, তাকে বলা হয়, মাঙ্গলিক দোষ না কাটালে বিবাহিত জীবনে তো অনেক সমস্যা হবেই এর পাশাপাশি তার বাবাও মৃত্যু হতে পারে। চাচার এমন কথায় তিনি প্রচণ্ড ভয় পেয়ে যান।

ব্যস, এ সময় ভাতিজির আতঙ্কের সুযোগ নিয়ে নেয় ওই চাচা। অভিযুক্ত ওই চাচা তার ভাতিজির সঙ্গে টানা ৪ বছর ধরে ওই ন্যাক্কারজনক কাজ চালিয়ে যায়। এমনকি ভাতিজির বিয়ের পরও ওই কাজ করা থেকে থামেনি নরপশু চাচা। এক পর্যায় আর এই নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে পুরো ঘটনাটি ওই তরুণী তার শ্বশুরকে বলে দেন।

নিজের পুত্রবধূর কাছ থেকে পুরো বিষয়টি শুনে অবাক বনে যান ওই তরুণীর শ্বশুর। এরপর তিনিই ওই তরুণীকে নিয়ে নারেলা থানায় যান। গত ১৩ সেপ্টেম্বর গোটা ঘটনা বর্ণনা করে একটি এফআইআরও করেন। সেদিনই অভিযুক্ত চাচাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এ বিষয়ে গণমাধ্যামকে পুলিস জানিয়েছে, অভিযুক্ত চাচাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ নিয়ে তদন্ত কাজ শুরু হয়েছে। এর পাশাপাশি নির্যাতিতা নারীর কাউন্সেলিংয়ের জন্য মহিলা কমিশনের সঙ্গেও যোগাযোগ করা হয়েছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: