গত ৬টি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেই তামিম ইকবাল ছিলেন দলের অন্যতম সদস্য। সবশেষ ২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও তামিম ছিলেন দলের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। অথচ তিনিই কী না আসন্ন বিশ্বকাপের দলে নেই। নেই বলতে নিজে থেকেই নাম সরিয়ে নিয়েছেন। এর কারণ অবশ্য এক বছর ধরে জাতীয় দলের হয়ে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে না খেলা। সব শেষ ম্যাচ খেলা হয়েছিল ২০২০ সালের মার্চে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। কিন্তু বিষয়টি মোটেই মানতে পারছেন না তামিম ইকবালের জন্মভূমি চট্টগ্রামের ভক্ত-অনুরাগীরা। তারা চাইছেন যে কোনো উপায়ে তাদের ঘরের ছেলেকে বুঝিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ফেরানো হোক।

তামিম ইকবালের সঙ্গে সমঝোতা করে আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দলে তাকে অন্তর্ভুক্তির দাবি জানিয়েছে ‘ক্রিকেট প্রেমী চট্টগ্রামবাসী’ নামে একটি সংগঠন। মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) চট্টগ্রামের কাজির দেউড়ী এলাকায় এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এসময় বক্তারা দাবি করেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের ওপেনিংয়ে তামিমের বিকল্প নেই। এজন্য তাকে যেন দ্রুত বিশ্বকাপ দলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। এই ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চান। প্রধানমন্ত্রী, বিসিবি সভাপতি, কোচ, সিনিয়র ক্রিকেটারদের নিয়ে তামিমের সঙ্গে বসে তাকে বিশ্বকাপের দলে ফিরিয়ে আনবেন বলে আশা প্রকাশ করেন তারা। বিসিবির সঙ্গে সিনিয়র ক্রিকেটারদের মনোমালিন্য, রাগ অভিমান চলছে তা নিরসন করবেন বলেও প্রত্যাশা তাদের।

মানববন্ধনে বক্তারা জানান, তামিমকে ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে বাদ দিয়ে তার অভিমানকে দায়ী করা হচ্ছে। বিসিবিতে নীলনকশা চলছে। মাশরাফি বিন মোর্ত্তজার অপমানজনক বিদায়, মাহমুদুল্লাহর টেস্ট থেকে সরে দাঁড়ানো, কিপিং থেকে মুশফিকের সরে দাঁড়ানো এবং তামিম ইকবালের দূরে থাকা সব নীলনকশার ষড়যন্ত্রের জাল এবং বাংলাদেশের ক্রিকেটকে ধ্বংস করার পায়তারা। বিশ্ব ক্রিকেটে উড়তে থাকা বাংলাদেশকে দমিয়ে রাখার ষড়যন্ত্র। ছাত্রনেতা সৌরভ প্রিয় পালের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন ওমর কাইয়ুম, নিজাম উদ্দিন চৌধুরী, জাকির হোসেন, মো. মামুন, মিঠুন বৈষ্ণব, মো. বেলাল, হামিদ, জাসেদ খান জাসু, মো. ফরিদ, লিমন চৌধুরী বাপ্পা, গাজী রিফাত, মহিউদ্দিন আবসার, কামরুজ্জামান, মো. জুয়েল, মামুন, ওমর ফারুকসহ আরও অনেকে। মিঠুন বৈষ্ণব বলেন, ‘বাংলাদেশ ক্রিকেটের ওপেনিংয়ে তামিমের বিকল্প নেই। তামিমের বিকল্প তামিমই। আমরা প্রয়োজনে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চাই। প্রধানমন্ত্রী বিসিবির সভাপতি, কোচ, সিনিয়র ক্রিকেটারদের নিয়ে তামিমের সঙ্গে বসবেন আশা করি। তামিমকে ফিরিয়ে আনবেন। বিসিবির সঙ্গে সিনিয়র ক্রিকেটারদের যে মনোমালিন্য, রাগ অভিমান চলছে তা নিরসন করবেন।’

বিশ্বকাপে না থাকলেও নেপালে অনুষ্ঠিত এভারেস্ট প্রিমিয়ার লিগে (ইপিএল) খেলতে যাচ্ছেন তামিম। বিশ্বকাপে খেলার জন্য তামিমকে না নিয়ে নেপালে পাঠানোর অনুমতি দিয়ে বিসিবি দেশের ক্রিকেটকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাচ্ছে বলে মন্তব্য করেন বক্তরা। সেই সঙ্গে তামিমকে ফিরে আসার আহ্বানও জানান তারা। ছাত্রনেতা সৌরভ প্রিয় পাল বলেন, ‘বিসিবি তামিমকে নেপালে অনুষ্ঠিত টি-টোয়েন্টি লিগে খেলার অনুমতি দিচ্ছে, কিন্তু নিজের মাতৃভূমির পক্ষে খেলানোর জন্য চেষ্টা করছে না। আমরা এখানে ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাচ্ছি। তামিমের ক্যারিয়ার ও বাংলাদেশ ক্রিকেটকে ধ্বংসের পায়তারা করছে দেশীয় ও বৈশ্বিক ক্রিকেট মাফিয়ারা। ‘আমরা চাই তামিম ফিরে আসুক। আর তামিমের প্রতি অনুরোধ করছি রাগ অভিমান ছেড়ে দেশ মাতৃকার টানে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলার সিদ্ধান্ত বিবেচনা করার। আমরা তামিমকে ছাড়া টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ মানি না। মানবও না। প্রয়োজনে আমরা আরও কর্মসূচি পালন করব।’

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: