ডেস্ক রিপোর্টঃ সকল আয়োজন শেষ। বর আসবে খাওয়া হবে, বিয়ে পড়ানো হবে। কিন্তু দুপুর পার হয়ে সন্ধ্যা হয়ে গেলো বর এলো না। এরপর নেমে এল রাতের অন্ধকারও। কিন্তু এরপরও বরের জন্য কারো অপেক্ষা শেষ হলো না। কারণ রাত নেমে এলেও কনের বাড়িতে এসে পৌঁছাতে পারেননি বর।

তবে এ ঘটনাটি ইচ্ছাকৃতভাবে ঘটানো হয়নি বলে জানান, বর সাত্তার। তিনি জানান, সকালে চট্টগ্রাম থেকে ফেনী আসার পথে যানজটে আটকা পড়েন তারা।

জানা গেছে, শুক্রবার ছাগলনাইয়া উপজেলার ঘোপাল ইউনিয়নের দূর্গাপুরের মৃত জালাল উদ্দিনের ছোট ছেলে আবদুর সাত্তারের সঙ্গে পৌরসভার ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীরের মেয়ে শারমিনা আরফিনের বিয়ের দিন ধার্য ছিল। কনেপক্ষ ছাগলনাইয়া কমিউনিটি সেন্টারে আটশ বরযাত্রীর দুপুরের খাওয়ার আয়োজন করে।

কিন্তু রাত পর্যন্ত বর এসে না পৌঁছানোয় এত বিশাল আয়োজন করেও সবাই হতাশ হতে বসেছে। কনের বড় ভাই জামাল জানান, পেশাগত কারণে বর সাত্তার চট্টগ্রাম থাকেন। শুক্রবার (১১ মে) সকাল সাড়ে আটটায় চট্টগ্রাম থেকে ছাগলনাইয়ার উদ্দেশে রওনা দেন তিনি।

কিন্তু যানজটের কারণে রাত পৌনে আটটার সময়ও বর অনুষ্ঠানস্থলে আসতে পারেননি। কমিউনিটি সেন্টারের মালিক ভেন্ডর শহিদ জানান, নির্দিষ্ট সময়ে এই অনুষ্ঠান শেষ করতে না পারায় আগামীকালের অনুষ্ঠানের আয়োজনও ভেস্তে যেতে বসেছে।

উল্লেখ্য, শুক্রবার চট্টগ্রাম থেকে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম পর্যন্ত ৭০ কি.মি. যানজটে আটকা পড়ে হাজার হাজার গাড়ি। মহিপালের ফতেহপুর রেল লাইনের উপর উড়াল সড়কের নির্মাণকাজ চলায় দীর্ঘ এই যানজটের সৃষ্টি হয়েছে বলে দাবি করেছেন যানবাহনের চালক-যাত্রীরা।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: