দেশের ইতিহাসে সয়াবিন তেলের সর্বোচ্চ দামের রেকর্ড গড়েছে। রোববার (৫ সেপ্টেম্বর) বাণিজ্য মন্ত্রণালয় খুচরা পর্যায়ে প্রতি লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম সর্বোচ্চ ১৫৩ টাকা নির্ধারণ করে। এটি দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ। এর আগে ২০১২ সালের মাঝামাঝিতে প্রতি লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম সর্বোচ্চ ১৩৫ টাকায় উঠেছিল। ব্যবসায়ীরা বলেছেন, আন্তর্জাতিক বাজারে সয়াবিন ও পামঅয়েলের দাম বাড়ায় দেশের বাজারেও এর প্রভাব পড়েছে।

সরকারের বিপণন সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) তথ্য অনুযায়ী, গত বছর এই সময়ে খুচরা বাজারে প্রতি লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেল বিক্রি হয়েছে ১০০ থেকে ১১০ টাকার মধ্যে। ৫ লিটারের বোতলজাত সয়াবিনের দাম ছিল ৪৬০ থেকে ৫১০ টাকার মধ্যে। এক লিটার খোলা সয়াবিন বিক্রি হয়েছে ৮৪ থেকে ৮৬ টাকায়। আর প্রতি লিটার সুপার পাম অয়েলের দাম ছিল ৭৩ থেকে ৭৬ টাকা। আর বাণিজ্য মন্ত্রণালয় নতুন করে ৫ লিটার বোতলজাত সয়াবিনের দাম সর্বোচ্চ ৭২৮ টাকা, প্রতি লিটার খোলা সয়াবিনের দাম ১২৯ টাকা ও সুপার পাম অয়েলের দাম ১১৬ টাকা নির্ধারণ করেছে।

টিসিবির হিসাবেই এক লিটার বোতলজাত সয়াবিন তেলে গত এক বছরে ৩৮ দশমিক ১০ শতাংশ, ৫ লিটারের বোতলজাত সয়াবিনে ৪০ দশমিক ২১ শতাংশ, এক লিটারের খোলা সয়াবিন তেলে ৫১ দশমিক ৭৬ শতাংশ ও সুপার পাম অয়েলে ৬৪ দশমিক ৪৩ শতাংশ দাম বেড়েছে।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও ব্যবসায়ীদের সংগঠন থেকে রবিবার বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গেল মে মাসে যে মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছিল, সয়াবিন তেলের ক্ষেত্রে সেটাই পুনর্বহাল করা হয়েছে। এখন থেকে দেশের বাজারে প্রতি লিটার খোলা সয়াবিন তেলের সর্বোচ্চ ১২৯ টাকা এবং বোতলজাত সয়াবিন তেল ১৫৩ টাকায় বিক্রি করা হবে। অন্যদিকে বোতলজাত প্রতি ৫ লিটার সয়াবিন তেলের দাম সর্বোচ্চ ৭২৮ টাকা এবং খোলা প্রতি লিটার পামঅয়েল ১১৬ টাকা দামে বিক্রি হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: