দেশে স্ত্রীর পরকীয়া প্রেমের কারণে ক্ষোভে ফেসবুক লাইভে এসে আত্মহত্যা করেছেন সৌদি প্রবাসী এক যুবক। ওই যুবকের নাম সবুজ সরকার (৩৫)। সোমবার (৬ ডিসেম্বর) রাত ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পরে ফেসবুক লাইভে আত্মহত্যার ভিডিওটি ভাইরাল হয়। তবে এরই মধ্যে তার আইডি থেকে ভিডিওটি সরিয়ে ফেলা হয়েছে। নিহত সবুজ কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার টনকী ইউনিয়নের মাজুর গ্রামের জাহাঙ্গীর আলম সরকারের ছেলে।

জানা যায়, সবুজ গত চার ডিসেম্বর সামাজিক যোগযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এক পোস্টে লেখেন, কষ্ট আর মানতে পারি না। এই দুনিয়াতে শুধু কষ্ট নিয়ে আসলাম। এ ছাড়া ওই পোস্টের কমেন্টে তিনি লেখেন, একটা মেয়ে আমার জীবনটা নষ্ট করে দিয়েছে।

নিহতের চাচাতো ভাই আরিফুর রহমান জানান, একসময় গাড়িচালক ছিলেন সবুজ। সেই সুবাদে পার্শ্ববর্তী বাইড়া গ্রামের এক মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। ৫ বছর আগে সবুজ সৌদি আরবে আসেন। সেখানে যাওয়ার ৮ মাসের মাথায় মোবাইলে বিয়ে হয়। বিয়ের দুই বছর পর পর্যন্ত বেশ ভালো ছিল সবুজ ও তার স্ত্রীর সম্পর্ক। এরই মধ্যে তিনি জানতে পারেন তার স্ত্রী পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েছেন। এমনকি কয়েকবার সে বাড়ি থেকে পালিয়েও গিয়েছিল। বিষয়টি জানার পরও সবুজ তাকে ক্ষমা করে দিয়ে সংসার করতে রাজি হয়। কিছুদিন পূর্বে ওই উপজেলার ত্রিশ গ্রামের এক যুবকের সঙ্গে ফের পালিয়ে যায় তার স্ত্রী। বিষয়টি কিছুতেই মেনে নিতে পারেননি সবুজ। এ কারণে ফেসবুক লাইভে এসে আত্মহত্যা করেন।

সবুজের চাচা বাবলু সরকার বলেন, তার মরদেহ দেশে আনা হবে কিনা এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি। মালিকপক্ষ যদি খরচ বহন করে তাহলে দেশে আনা হবে। তা না হলে সেখানেই দাফন করতে হবে। পরিবার আর্থিকভাবে অসচ্ছল। মুরাদনগর টনকী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাকির হোসেন বলেন, লাইভে আত্মহত্যার ভিডিও দেখেছি। খুবই মর্মান্তিক ঘটনা। তাদের বিয়ে মোবাইলে হয়েছে। তবে পরিবার থেকে আমার কাছে স্ত্রীর পরকীয়া নিয়ে অভিযোগ করেনি।

বাঙ্গরা বাজার থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, গত চার ডিসেম্বর সবুজের স্ত্রী তার শাশুড়িকে নির্যাতন করেছেন। পরিবার থেকে এমন অভিযোগ পেয়েছি। সেটি তদন্ত করা হচ্ছে। তবে আত্মহত্যায় কারও প্ররোচনা ছিল কিনা তা তদন্ত করে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: