নব্বই বছর বয়সে বিয়ে করেছেন কুমিল্লা আইনজীবী সমিতির সিনিয়র আইনজীবী ইসমাইল হোসেন। তাঁর প্রথম স্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে পাঁচ বছর আগে। সন্তানরাও নিজেদের জীবন নিয়ে ব্যস্ত। তাই এবার সঙ্গীর খোঁজে ৪০ বছরের এক যুবতীকে বিয়ে করেছেন তিনি। বিষয়টি কোনোভাবেই মানতে পারছেন না নির্বাসিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন। তাদের বিয়ের বিষয়টি উল্লেখ করে তসলিমার মন্তব্য, ‘পুরুষরাই মেয়েদের জীবন নষ্টের জন্য দায়ী। ‘

তসলিমা নাসরিনের ফেসবুকের পোস্টটি পাঠকদের জন্য হুবহু তুলে ধরা হলো- “বাংলাদেশের কুমিল্লায় নব্বই বছর বয়সী এক অবসরপ্রাপ্ত আইনজীবী এক তরুণীকে ঘটা করে বিয়ে করেছে। এই খবরটি মিডিয়ার অনলাইন এডিশানে দেখলাম। ভেবেছিলাম মন্তব্যের কলাম বোধহয় তিরস্কার, কটূক্তি, গালাগালির সুনামিতে ভেসে যাবে। আশ্চর্য, দেশের হাজারো সুযোগ্য সন্তান সমস্বরে আলহামদুলিল্লাহ বলছে। প্রশংসায় পঞ্চমুখ সকলে। একটি মেয়ের জীবন নষ্ট হচ্ছে দেখেও কারো কোনও সমবেদনা নেই। আসলে মেয়ে হয়ে জন্ম নিলে জীবনের অপচয় তো অবশ্যম্ভাবী। পরনির্ভর পরাধীন জীবন তো এক রকম নষ্টই। সে কারণেই বোধহয় কেউ সেদিকে তাকায় না। আসলে যে পুরুষেরা মেয়েদের জীবন নষ্টের জন্য দায়ী, সমাজে ‘বীর পুরুষ’ হিসেবে সে পুরুষেরাই সম্মানিত। ”

জানা গছে, বিয়ের পর একটি ছোট অনুষ্ঠান করেন কুমিল্লা নিবাসী ইসমাইল হোসেন। ওই বিয়ের অনুষ্ঠানে ৫০ জন আমন্ত্রিত ছিলেন। কুমিল্লা আদালতের আইনজীবী আনিসুর রহমান মিঠু বলেন, ‘শুনেছি ইসমাইল সাহেবের জুনিয়র অ্যাডভোকেট মিতুর বাড়িতে এই বিয়ে হয়েছে। ’ আরেক আইনজীবী কাজী আসিফ বলেন, ‘তিনি এখনো আদালতে প্র্যাকটিস করেন। তাঁর স্ত্রী মারা গেছেন। একাকিত্ব থেকে মুক্তি পেতে তিনি বিয়ে করেছেন বলে শুনেছি। ’ ইসমাইল হোসেনের ছেলে জসীম উদ্দিন বলেন, ‘বাবা আবার বিয়ে করতে চলেছেন বলে আমরা কিছুই জানতাম না। শুনেছি তিনি নতুন স্ত্রী নিয়ে বাড়িতে এসেছেন। ’

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: