বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, ‌‘ভোজ্যতেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম কমার কোনও সুখবর আপাতত দিতে পারছি না। কবে নাগাদ দাম কমবে তাও বলা যাচ্ছে না। আর চালের বিষয়টি মন্ত্রণালয় দেখভাল করছে। এ বিষয়ে কেবিনেটে আলোচনা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী চাল মজুদকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন। এ নিয়ে সারাদেশে অভিযান চলছে। বুধবার (১ জুন) দুপুরে রংপুর পর্যটন মোটেলে ‘মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার রোধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার লক্ষ্যে কর্মপরিকল্পনা’ শীর্ষক এক কর্মশালায় অংশ নিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

টিপু মুনশি বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম বৃদ্ধির কারণে দেশেও তেলের দাম কমানো সম্ভব হচ্ছে না। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে জুনের মাঝামাঝি সময় থেকে দেশের দারিদ্রসীমার নিচে বসবাস করা এক কোটি পরিবারের মাঝে সাশ্রয়ী মূল্যে সয়াবিন তেল বিক্রি করা হবে। আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম না কমা পর্যন্ত এ কার্যক্রম চলমান থাকবে।

তিনি আরও বলেন, বৈশ্বিক অবস্থার কারণে দেশে নিত্য-পণ্যের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। রাশিয়া-ইউক্রেনের যুদ্ধের কারণে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। অপরদিকে দেশে ডলারের দাম অস্বাভাবিক হারে বেড়ে গেছে। ফলে আমদানীকারকদের পরিবহন খরচ বেড়ে যাওয়ায় সবকিছুর দাম বেড়েছে।

এর আগে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের উদ্যোগে জেলা ও বিভাগীয় প্রশাসনের আয়োজনে কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন বিভাগীয় কমিশনার আবদুল ওয়াহাব ভুইয়া। এতে উপস্থিত ছিলেন মাদকদ্রব্য অধিদফতরের মহাপরিচালক আব্দুস সবুর মন্ডল, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব মোকাব্বির হোসেন প্রমুখ।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: