মাত্র ৩ ভোটে হেরেছেন। তাতে কি। তবুও নিজেকে বিজয়ী মনে করে উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটারদের সাথে আনন্দটা ভাগাভাগি করে নেয়ার জন্য ৩ হাজার মানুষকে একবেলা খাওয়ালেন এক পরাজিত প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ। তিনি সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলার জামতৈল ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য পদে নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলেন। বুধবার (২৯ ডিসেম্বর) দুপুরে পরাজিত ওই পরাজিত প্রার্থী আজাদ এমন আয়োজন করেন। এ নিয়ে এলাকাজুড়ে এক আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন তিনি।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, আবুল কালাম আজাদ গত মঙ্গলবার (২৮ ডিসেম্বর) কামারখন্দ হাট থেকে ৫৫ হাজার টাকা দিয়ে একটি ষাঁড় গরু কিনেন। পরে গ্রামের বাসিন্দাদের সহযোগিতায় গরু জবাই করে স্থানীয় পদ্ধতিতে ১০টি চুলায় বিরিয়ানি তৈরি করেন। কর্ণসূতি গ্রামের বাসিন্দা নুরুল ইসলাম বলেন, আমাদের ধারণা ভোটে আবুল কালাম আজাদই বিজয়ী হয়েছে। তাই আমরা আনন্দ উৎসব হিসেবে একবেলা খাওয়ার অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছি।

আজাদ সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, জনগণের বিপুল ভোটে তিনি বিজয়ী হয়েছেন। কিন্তু কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা ভোটগ্রহণ কর্মকর্তারা অন্য প্রার্থীকে অবৈধ ভাবে বিজয়ী ঘোষণা করেন। তিনি আরও জানান, ঘোষণা যাই হোক না কেন, তারা আমাকে ভোট দিয়েছেন, আমিই বিজয়ী। যার কারণে একটু আনন্দ উৎসবের কারণেই সবাইকে নিয়ে এক বেলা খাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এতে স্বতঃস্ফূর্তভাবে প্রায় তিন হাজার মানুষ দুপুরের খাবারে অংশ নেন।

এদিকে, কামারখন্দ উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, গত ২৬ ডিসেম্বর ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে কামারখন্দ উপজেলার ৪ টি ইউনিয়ন পরিষদে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। তারমধ্য জামতৈল ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ড কর্ণসূতি গ্রামে তিনি ইউপি সদস্য পদে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করেন। ভোট গণনা শেষে তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর কাছে মাত্র ৩ ভোটের ব্যবধানে আবুল কালাম আজাদ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: