আলাপ পাবজি খেলতে গিয়ে। সেখান থেকে প্রেম এবং পরে শারীরিক সম্পর্কে উত্তরণ। কিন্তু এবার সেই সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসতে চেয়ে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হলেন যুবক। তাকে ফাঁসানো হতে পারে ভবিষ্যতে, এই আশঙ্কার কথা শুনে যুবককে আগাম জামিনও দিয়েছে উচ্চ আদালত।

হাইকোর্টে আবেদন জানানো বয়স বত্রিশের ওই যুবকের নাম রাম শর্মা (নাম-পদবি পরিবর্তিত)। বাড়ি উড়িষ্যার জলেশ্বরে। বেঙ্গালুরুতে একটি সফটওয়্যার সংস্থায় কাজ করেন তিনি।

আদালতে করা আবেদনে রাম জানান, মোবাইলে পাবজি খেলতে গিয়ে তার সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা প্রিয়া সাহার (নাম পরিবর্তিত) সঙ্গে পরিচয় হয়। প্রিয়ার বয়সও ৩২। ২০২০ সালে মহামারি পরিস্থিতির কারণে দেশে লকডাউন ঘোষণা হওয়ার পরেই জলেশ্বরে নিজের বাড়িতে এসেছিলেন রাম। এর পর প্রথম বার প্রিয়ার সঙ্গে দেখা করেন তিনি।

আদালতকে রাম জানান, প্রথম সাক্ষাতের পর থেকে প্রিয়ার সঙ্গে তার ঘনিষ্ঠতা বাড়তে থাকে। তৈরি হয় প্রেমের সম্পর্ক। ধীরে ধীরে তা গড়ায় শারীরিক সম্পর্কে। কিন্তু কয়েক দিন আগে রাম জানতে পারেন, প্রিয়া বিবাহিতা। তার সাত বছরের সন্তানও রয়েছে। প্রিয়ার পরকীয়া সম্পর্কের কথা জানেন তার স্বামীও।

প্রিয়ার বিবাহিত জীবন সম্পর্কে জানার পর থেকেই প্রণয়ের সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসতে চান রাম। যুবকের অভিযোগ, এর পর থেকেই রামের বাবাকে মেরে ফেলার হুমকি দিতে শুরু করেছেন প্রিয়ার স্বামী। রাম আশঙ্কা করছেন, ভবিষ্যতে তার বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা দায়ের হতে পারে। প্ররোচনা, চক্রান্ত থেকে বাঁচতেই আগাম জামিনের আবেদন জানান তিনি।

তার আইনজীবী নভোনীল দে বলেন, ‘‘আমার মক্কেলের কাছ থেকে অনেক টাকা হাতিয়েছেন ওই নারী। আগামী দিনে রাম কোনও চক্রান্তের শিকার যাতে না হন, সেই কারণেই হাই কোর্টে আগাম জামিনের আবেদন করা হল।’’

রামের এই আবেদনের ভিত্তিতে বুধবার বিচারপতি দেবাংশু বসাক এবং বিচারপতি বিভাসরঞ্জন দে-র ডিভিশন বেঞ্চ আগাম জামিনের আবেদন মঞ্জুর করেছে।

সূত্র: আনন্দবাজার

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: