বন্যার্তদের জন্য কয়েক টন শিশুখাদ্য ও শুকনা খাবারের ব্যবস্থা করলেন আহমাদুল্লাহ

ভারী বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলের কারণে সিলেট-সুনামগঞ্জসহ দেশের ১১ জেলায় বন্যা দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে সিলেট ও সুনামগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। যার কারণে লাখ লাখ মানুষ বর্তমানে পানিবন্দি হয়ে দুর্বিষহ দিন পার করছেন। বাসস্থান ত্যাগ করে হাজারো মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রে গেছেন। অনেকে আবার সেই সুযোগও পাননি। নিজের বাড়িতে বা কোনো উচুঁ জায়গায় কোনো রকম আশ্রয়ের ব্যবস্থা করেছে।

এই সংকট মোকাবেলায় সরকার থেকে নানা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হলেও এখনো খাবারের সংকটে আছেন অনেক বানভাসি মানুষ। বিভিন্ন সংস্থা ও সরকারি উদ্যোগে খাবার সরবরাহ করা হচ্ছে। থেমে নেই বিভিন্ন ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠানও। সকলেই স্ব স্ব উদ্যেগে এই বন্যা কবলিত মানুষদের সাহায্যর জন্য এগিয়ে আসছে। তারই ধারাবাহিকতায় বন্যার্তদের জন্য কয়েক টন খাবারের ব্যবস্থা করেছে আস সুন্নাহ ফাউন্ডেশন। ইতিমধ্যেই সেনাবাহিনীর কাছে বানভাসি মানুষের জন্য কয়েক টন খাবার তুলে দিয়েছে তারা।

এই ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান শায়খ আহমাদুল্লাহ এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আলহামদু লিল্লাহ, আজ ১ টন শিশুখাদ্য (গুড়ো দুধ), ২০টন খেজুর, ১০ টন চিড়া, আড়াই টন চিনি ও ১০ হাজার পিস মোমবাতি প্যাকেট করা হয়েছে। সেই সাথে আছে ৪ হাজার বোতল মিনারেল ওয়াটার (৫ লিটার প্রতিটি)। এদিকে গাইবান্ধার মণ্ডল ফ্লাওয়ার মিলে (চাল ভাজা, ভুট্টা, গম ভাজা ও ছোলার সংমিশ্রণে) তৈরি হচ্ছে ৫টন ছাতু।

আর ইতোমধ্যে আমাদের ১০ টন খেজুর, ১০ টন চিড়া এবং ১০ হাজার লিটার মিনারেল ওয়াটার ও মেডিকেল ক্যাম্পের জন্য বিভিন্ন পদের ১৮ হাজার পিস ঔষধ সিলেটে পৌঁছে গিয়েছে। চিড়া ও খেজুর ২ কেজি করে প্যাকেট করা হয়েছে। এগুলো সেনাবাহিনীর সহযোগিতায় দুর্গম এলাকায় বিতরণ করা হচ্ছে।

আগামীকাল থেকে আরো ব্যাপকতরভাবে চাল, ডাল, আলু, তেল ইত্যাদির প্যাকেজ করা হবে ইন-শা-আল্লাহ। সেই সাথে গরুর খাদ্য হিসেবে এক ট্রাক ভূসি অর্ডার করা হয়েছে। এগুলো সেনাবাহিনীর পাশাপাশি আমরা নিজেরাও বিতরণ করবো ইন-শা-আল্লাহ। মহান আল্লাহ আমাদের প্রচেষ্টা এবং আপনাদের দান কবুল করুন। কষ্টে থাকা মানুষের কষ্ট দূর করে দিন।

উল্লেখ্য, আস সুন্নাহ ফাউন্ডেশন শিক্ষা, সেবা ও দাওয়াহ- তিন বিভাগে কাজ করছে। সারা দেশের ধর্ম-বর্ণ-নির্বিশেষে অসচ্ছল, দরিদ্র নারী-পুরুষকে স্বনির্ভর করতে কাজ করে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। আস সুন্নাহ ফাউন্ডেশন প্রতি ঈদে অসহায় শিশুদের নতুন জামাকাপড় দেওয়ার পাশাপাশি বন্যা, নদীভাঙন বা প্রাকৃতিক নানা দুর্যোগ-দুর্ঘটনায় ত্রাণ বিতরণ করে থাকে। গত কোরবানির ঈদে দরিদ্র অঞ্চলগুলোতে অর্ধকোটি টাকার বেশি কোরবানির পশুর গোশত বিতরণ করেছে তারা। অনাথ ও দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদানসহ মাদরাসাতুস সুন্নাহ নামে স্বতন্ত্র শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানও গড়ে তুলেছে আস সুন্নাহ ফাউন্ডেশন। আস সুন্নাহ ফাউন্ডেশনের এমন বহুমুখী সেবার মাধ্যমে জনগণ উপকৃত হচ্ছেন।

     আরো পড়ুন....

পুরাতন খবরঃ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  

ফেসবুকে আমরাঃ