সম্পর্কে আপন দুই ভাই। পেশায় একজন শিক্ষক, অন্যজন চিকিৎসক। দুইজনই বিসিএস ক্যাডার। ঈদের ছুটিতে বাড়ি এসে বাবার ফুটপাতের মিষ্টির দোকানে মিষ্টি বিক্রি করছেন দুই ভাই। ইতিমধ্যে তাদের ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গেছে। আদি কর্ম ও পৈতৃক পেশার প্রতি তাদের এই পরম শ্রদ্ধার বিষয়টি এখন আলোচিত হচ্ছে সকল গনমাধ্যমে । সবার প্রশংসায় ভাসছেন ওই দুই ভাই। ভাররাল হওয়া এই খবরটি এসেছে প্রধানমন্ত্রীর নজরেও। কর্মের প্রতি এমন নিবেদন ও শ্রদ্ধার কথা জানতে পেরে খোদ প্রধানমন্ত্রীও তাদের প্রশংসা করেছেন।

তিনি এজন্য তাদেরকে পুরস্কৃত করতে চেয়েছেন। এছাড়া ফুটপাতের ওই দোকানের মিষ্টিও নিয়ে যেতে বলেছেন। নিজ সংসদীয় এলাকার এই আলোচিত বিষয়টি জানিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন- রাজশাহী-৬ আসনের সংসদ সদস্য ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। এতে তিনি বলেছেন, ‌‘বিষয়টি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নজরে এনেছি। তিনি আমাকে যা বলেছেন তা হলো, দুই ভাইকে বিশেষ পুরস্কার দেওয়া উচিত। কাজের মূল্যায়ন করছে। আমার অভিনন্দন জানাবে। আমার জন্য ওই দোকান থেকে মিষ্টি আনবে। ’ পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আরও লেখেন- এখন আমারতো কাজ বেড়ে গেলো!

এদিকে রোববার (১ মে) সকালে ডা. মৃনাল কুমার পাল মিঠন জানান, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর একান্ত সহকারী এরই মধ্যে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। তিনি প্রতিমন্ত্রীর পক্ষে প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন বার্তা তাদের কাছে পৌঁছে দিয়েছেন। তবে এখনও বিস্তারিত কিছুই ঠিক হয়নি। তার নানী স্ট্রোক করেছেন। তারা সেখানে যাচ্ছেন। সবকিছু ঠিক হলে তার ভাই ঢাকা যাবেন। আর প্রতিমন্ত্রী যেভাবে তাদেরকে নির্দেশনা দেবেন তারা ঠিক সেভাবেই মিষ্টি পাঠানোর ব্যাপারে প্রস্তুতি নেবেন বলেও জানান ডা. মিঠন।

রাজশাহীর বাঘা উপজেলার সমৃদ্ধ পৌরসভার নাম আড়ানী। সেখানে ঈদের ছুটিতে বাড়ি গিয়ে পিতার ফুটপাতে মিষ্টির দোকানে বসে এভাবেই বিসিএস ক্যাডার ও চিকিৎসক ভাই দোকানদারি করছেন। উপজেলার আড়ানী পৌর বাজারের চালের হাটে বাবার ফুটপাতের এই মিষ্টির দোকান রয়েছে তাদের। তাদের এই ব্যবসা তিন পুরুষের।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: