বেতনের টাকা আটকে দেওয়ায় স্ট্রোক করলেন প্রভাষক

ফরিদপুরের বোয়ালমাতে একটি বেসরকারি কলেজে বেতনের টাকা আটকে দেওয়ায় স্ট্রোক করেছেন প্রভাষক। বোয়ালমারী উপজেলায় কাজী সিরাজুল ইসলাম মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ মো. ফরিদ আহমেদ রণজিৎ কুমার নামে এক প্রভাষকের বেতন আটকে দেওয়ায় ওই প্রভাষক স্ট্রোক করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। বর্তমানে রণজিৎ কুমার ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

জানা যায়, তিনি বোয়ালমারী কাজী সিরাজুল ইসলাম মহিলা কলেজের অনার্স বিভাগের নন এমপিও প্রভাষক । তিনি স্ট্রোক করার পরে তাকে বোয়ালমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে সেখান থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাকে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। প্রভাষক রনজিৎ কুমার মণ্ডলের বর্তমান অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে তার পরিবার সূত্রে জানা গেছে।

কলেজের অনার্স শাখার নন এমপিও শিক্ষক রনজিৎ কুমার মণ্ডল কলেজ প্রদত্ত তাদের আঠারো মাসের বেতন বকেয়া থাকার বিষয়টি সভাপতিকে অবহিত করেন। পরে বেতন বকেয়ার বিষয়টি সভাপতিকে অবহিত করায় অধ্যক্ষ মো. ফরিদ আহমেদ ওই শিক্ষককে ডেকে মানসিক নিপীড়ন করেন।

এর দুই দিন পর কলেজ সভাপতি কাজী সিরাজুল ইসলাম অনার্স শাখার নন এমপিও শিক্ষকদের বেতন বাবদ নিজের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে প্রতিষ্ঠানকে পাঁচ লাখ টাকার চেক দেন। সভাপতি প্রদত্ত ওই টাকা থেকে কলেজের নন এমপিও শিক্ষকদের তিন মাসের বেতন বাবদ ৫৪ হাজার টাকা দেওয়া হয়। কিন্তু বেতন বকেয়ার বিষয়টি সভাপতিকে অবহিত করার অপরাধে রনজিৎ কুমার মণ্ডলের বেতনের প্রাপ্য অংশ আটকে দেন অধ্যক্ষ।

এদিকে কলেজের অধ্যক্ষ মো. ফরিদ আহমেদ বলেন, ওই শিক্ষকের বেতন দেওয়া হবে না, তা বলা হয়নি। তিনি এক বছর ছুটিতে থাকায় বেতন দেওয়া হয়নি। আমি তাকে মানসিক নির্যাতন করিনি, বলেছি বেতনের বিষয়টি সভাপতিকে বলা আপনার উচিৎ হয়নি।

বোয়ালমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রেজাউল করিম বলেন, আমার কাছে এ বিষয়ে কোন অভিযোগ আসেনি তবে, আমি বিষয়টি শুনেছি।

     আরো পড়ুন....

পুরাতন খবরঃ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  

ফেসবুকে আমরাঃ