কুমিল্লা জেলার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলায় মায়ের সঙ্গে অভিমান করে এক মাদ্রাসা ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। এলাকা ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সন্ধা সারে ৭টায় শশীদল ইউনিয়নের নাগাইশ গ্রামের মো: বাচ্চু মিয়ার ছোট মেয়ে নাগাইশ ফয়েজীয়া রাজ্জাকিয়া ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার ৮ম শ্রেণির ছাত্রী মরিয়ম আক্তার(১৫) বাড়ির পাশে কাঠাল গাছের সাথে গলায় ওড়না পেচিয়ে আত্মহত্যা করে।

মোরিয়ম আক্তারকে তার মা গত ৩/৪ দিন পূর্বে পারিবারিক বিষয় নিয়ে বকাবকি করেছিল। সে রাগ করে খাবার খেতো না। মরিয়মকে নিয়ে মঙ্গলবার সকালে অভিমান ভুলে গিয়ে নিজে খাবার খায় সে। পরে বিকালে মায়ের সাথে বাজারে যায় তার প্রয়োজনীয় জিনিস ক্রয় করার জন্য। ক্রয় করে বাড়িতে ফিরে আসে মা মেয়ে। মাগরিবের আযান হওয়ার পর তার মা নামাজ পরতে যান।

ঐ সময় বাড়ির পশ্চিম পাশে কাঠাল গাছের সাথে ওড়না পেচিয়ে মরিয়ম আত্মহত্যা করে। মা নামাজ শেষে তাকে ঘরে না দেখতে পেয়ে বাড়ির চারদিকে খোজ করার পর বাড়ির পশ্চিম পাশে কাঠাল গাছে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখে চিৎকার দিলে পরিবারের লোকজন ছুটে এসে তার ওড়না কেটে নিচে নামানোর কিছুক্ষন পর সে মারা যায়।

ঐদিন রাতেই ব্রাহ্মণপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত)মো: জাকির হোসেন ও সঙ্গীয় ফোর্স ঘটনাস্থলে পৌছে লাশের ছোরত হাল রিপোর্ট তৈরি করে। পরে ময়না তদন্তের জন্য লাশ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। মরিয়মের বাবা বাচ্চু মিয়া বাদী হয়ে থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা করেছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: