ভাবির দায়ের করা মামলায় কারাগারে পাঠানো হয়েছে এস এম মাহবুব হোসাইন নামের এক যুবককে। তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি। বুধবার দুপুর ১২টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২-এর বিচারক মো. আলমগীর কবির তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এর আগে একই মামলায় ২০২০ সালের ৬ নভেম্বর পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে। আদালত সূত্রে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে।

আদালত ও স্থানীয় সূত্র জানায়, মাহবুবের বড় ভাই জাকির হোসেন সৌদিপ্রবাসী। জাকির সৌদিতে চলে গেলেই তার স্ত্রী রেহেনার ওপর নির্যাতন চালাত পরিবারের সদস্যরা। রেহেনাকে শ্বশুরবাড়ির কোনো ঘরে থাকতে না দেওয়ায় তিনি বাবার বাড়ি থেকে তিন লাখ টাকা এনে একটি ঘর নির্মাণ করে সেখানে বসবাস শুরু করেন।

এক পর্যায়ে মাহবুব ও তার অন্য ভাই মোস্তফা হোসাইন ভবনটি দখল করে নেন। ২০২০ সালের ১ আগস্ট রেহেনার ও তার পাঁচ বছরের ছেলেকে মারধর করা হয়। এসব ঘটনায় ৪ আগস্ট রেহেনা আক্তার বাদী হয়ে আদালতে মামলা দায়ের করেন। ৬ নভেম্বর পুলিশ মাহবুবকে উপজেলার ভিটি দাউদপুরের গ্রামের বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করলে আদালতে নির্দেশে কারাগারে পাঠানো হয়। পরে তিনি জামিনে ছাড়া পান।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: