ভেঙে দেওয়া হলো পাকিস্তানের পার্লামেন্ট, ৩ মাসের মধ্যে নির্বাচন

পাকিস্তানের জাতীয় পরিষদ ভেঙে দিয়েছেন দেশটির রাষ্ট্রপতি আরিফ আলভি। দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের পরামর্শ মোতাবেক আইনসভা ভেঙে দেওয়ার প্রস্তাব অনুমোদন করেন তিনি বলে জানিয়েছে পাকিস্তানের একাধিক সংবাদমাধ্যম। এই পরিস্থিতিতে আগামী তিন মাস অর্থাৎ ৯০ দিনের মধ্যে দেশটিতে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে।

এর আগে পাকিস্তানের সংসদ ভেঙে দিতে রাষ্ট্রপতিকে চিঠি দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। সেই সঙ্গে জনগনকে আগাম নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে বলেছেন তিনি। রোববার (৩ এপ্রিল) বিরোধী পক্ষের উত্থাপন করা অনাস্থা প্রস্তাব খারিজ করে দেওয়ার পরে জাতির উদ্দেশ্য দেওয়া এক ভাষণে এই কথা বলেন ইমরান। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী জানান, তিনি রাষ্ট্রপতিকে বিধানসভা ভেঙে দিতে বলেছেন। দেশে গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে নতুন করে নির্বাচন হতে হবে। পাকিস্তানের জনগণকে আগাম নির্বাচনের প্রস্তুতি গ্রহণ করার আহ্বান জানাচ্ছি। এরপরই পাকিস্তানের পার্লামেন্ট ভেঙে দেওয়ার প্রস্তাব অনুমোদন করেন দেশটির প্রেসিডেন্ট আরিফ আলভি।

ইমরান খানের বিরুদ্ধে আনা অনাস্থা প্রস্তাব খারিজ করে দেন দেশটির জাতীয় পরিষদের ডেপুটি স্পিকার কাসিম খান। একইসঙ্গে এটিকে সংবিধানের ৫ নম্বর অনুচ্ছেদের পরিপন্থি হিসেবেও আখ্যা দিয়েছেন তিনি। এরপরই প্রাথমিক প্রতিক্রিয়ায় ইমরান খান বলেন, স্পিকারের সিদ্ধান্তের জন্য আমি প্রতিটি পাকিস্তানিকে অভিনন্দন জানাই। অনাস্থা প্রস্তাব আমাদের বিরুদ্ধে একটি বিদেশী ষড়যন্ত্র ছিল। পাকিস্তানের সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত যে কে তাদের শাসন করবে।

প্রধানমন্ত্রিত্ব টিকিয়ে রাখার লড়াইয়ে ইমরান খান জয়ী হবেন কি না, সে প্রশ্নে পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ জাতীয় পরিষদে ভোট ছিল রোববার। এদিন দুপুরে জাতীয় পরিষদের অধিবেশন শুরু হয়। অধিবেশনের শুরুতেই ওই প্রস্তাব উত্থাপিত হওয়ার পর ডেপুটি স্পিকার কাশিম সুরি তা খারিজ করে দেন। ব্যাপারটিকে তিনি আখ্যা দিয়েছেন ‘অসাংবিধানিক’ বলে। ষড়যন্ত্রের কারণে এই প্রস্তাব তোলা হয়েছে বলে মন্তব্য করেন কাশিম সুরি। এরপরই অধিবেশন মুলতবি করেন তিনি। এক পর্যায়ে বিরোধী দলগুলোর তোপের মুখে পড়েন তিনি।

     আরো পড়ুন....

পুরাতন খবরঃ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  

ফেসবুকে আমরাঃ