বাস্তব জীবনে জীবিত থাকলেও দীর্ঘদিন মৃতের তালিকায় নাম ছিল নেত্রকোনার মদন উপজেলার সাংবাদিক আব্দুল আওয়াল। নিজেকে জীবিত প্রমাণ করতে ৯ বছর ধরে সরকারি বিভিন্ন অফিসে ছুটাছুটি করেও পাননি সমাধান। এ নিয়ে দেশের অনেক গণমাধ্যমে নানা প্রতিবেদনও প্রকাশিত হয়।

অবশেষে ‘মৃত’ থেকে ‘জীবিত’ স্বীকৃতি পেলেন মদন পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের আব্দুল আওয়াল। আজ বুধবার (২১ এপ্রিল) উপজেলা নির্বাচন অফিসার মো. হামিদ ইকবাল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, এ সংক্রান্ত সংবাদ নজরে আসার পর আব্দুল আওয়ালের ভোটার আইডি নম্বর সংশোধন করা হয়।

২০১২ সালে ভোটার তালিকা হালনাগাদে আব্দুল আওয়ালকে মৃত উল্লেখ করা হয়। এ কারণে চাকরির আবেদনের পাশাপাশি সরকারি সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়েছিলেন আব্দুল আওয়াল। এমনকি জাতীয় পরিচয়পত্রের জন্য করোনার টিকা পর্যন্ত নিতে পারেননি। এ নিয়ে দুর্বিষহ দিন পার করছিলেন তিনি।

আওয়ালের ভাই হোসাইন আহমেদ পরাগ বলেন, ‘আমরা আজ খুব খুশি। অবশেষে আমার ভাই জীবিত হিসেবে স্বীকৃতি পেল। তার পাশে দাঁড়ানোয় প্রশাসন ও গণমাধ্যম কর্মীদের ধন্যবাদ জানাই।’

আব্দুল আওয়াল বলেন, ‘আমি আজ উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে আমার জাতীয় পরিচয়পত্রের নিবন্ধন কাগজ সংগ্রহ করেছি। এখন থেকে সব নাগরিক সুবিধা ভোগ করতে পারবো।’ মদন উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. হামিদ ইকবাল বলেন, ‘সাংবাদিক আব্দুল আওয়ালের ভোটার আইডি নিয়ে যে জটিলতা ছিল তা সংশোধন করা হয়েছে।’

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: