চিত্রনায়িকা মৌসুমীকে বিরক্ত করার অভিযোগে চিত্রনায়ক জায়েদ খানকে চড় মেরেছেন নায়িকার স্বামী অভিনেতা ওমর সানী। এ ঘটনায় ওমর সানীকে পিস্তল দিয়ে গুলি করার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে চিত্রনায়ক জায়েদ খানের বিরুদ্ধে। শুক্রবার রাজধানীর একটি কনভেনশন সেন্টারে অভিনেতা ডিপজলের ছেলের বিয়ের অনুষ্ঠানে এ ঘটনা ঘটে। তবে এই অভিযোগকে মিথ্যা দাবি করেছেন জায়েদ খান।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, মৌসুমীর সঙ্গে নাকি জায়েদ খান খারাপ আচরণ করেছেন। এটা নিয়ে জায়েদের ওপর মৌসুমীর স্বামী ওমর সানী ভীষণ বিরক্ত হন। এ বিষয়ে ডিপজলের কাছে বিচারও চান ওমর সানী। ডিপজল উভয়কে ঠাণ্ডা থাকতে বলে দেন। উভয়কে উভয়ের থেকে দূরে থাকার পরামর্শও দেন। তবে এ ঘটনা ওখানেই থেমে থাকেনি। ডিপজলের ওই সমাধান ওমর সানীর ভালো লাগেনি। মেনেও নেননি। তাই জায়েদ খানকে ডিপজলের ছেলের বিয়েতে পেয়েই চড় মেরে বসেন এবং বলেন, তোরে (জায়েদ) না নিষেধ করছি, আমার বউরে ডিস্টার্ব না করতে। কোনো ফাজলামি করবি না। অসম্মান করে কথা বলবি না। ওমর সানীর চড় ও এমন সব কথা শুনে জায়েদ খান কোমর থেকে পিস্তল বের করে বলেন, ‘গুলি করে দেব।’

এ বিষয়ে ওমর সানী বলেন, ‘ঘটনা সত্য। আমি বিয়ের অনুষ্ঠানে গিয়েছি রাত ৯টার দিকে। কথায় কথায় আমি জায়েদকে চড় দিয়েছি। আমি দেখেছি সে পিস্তল উঠিয়েছে। ওর কাছে তো লাইসেন্স করা পিস্তল আছে।’

তবে এই অভিযোগ মিথ্যা দাবি করে জায়েদ খান বলেন,‘এমন কোনো ঘটনাই ঘটেনি, নির্বাচনের রায় সামনে রেখে এমন করা হচ্ছে। আর বসুন্ধরা কনভেনশন সেন্টারে পিস্তল নিয়ে যাওয়া যায় নাকি? আমি বিয়ের আয়োজনে পিস্তল নিয়ে যাইনি। আর ওমর সানী আমাকে চড়ও দেয়নি।’

এ বিষয়ে অভিনেতা ডিপজলও খুব বেশি কিছু বলতে চাননি। তিনি গণমাধ্যমকে বলেছেন, ‘হয়তো আগে থেকে তাঁদের মধ্যে রাগারাগি ছিল, এ কারণে ঘটনাটি ঘটেছে। আমি বিয়ে নিয়ে ব্যস্ত ছিলাম, এর বেশি কিছু জানি না।’

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: