Made with Square InstaPic

অনলাইন ক্লাস চলাকালীন সালাম না দেওয়ায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) মাস্টার দা’ সূর্য সেন হলের এক শিক্ষার্থীকে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগের এক কর্মীর বিরেুদ্ধে। নির্যাতনের ওই শিক্ষার্থী কানে শুনছেন না। এই ঘটনায় ভুক্তভোগী ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী সাজ্জাদুল হক সাঈদি হল প্রাধ্যক্ষ বরাবর লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন।

জানা গেছে, অভিযুক্ত ছাত্রলীগ কর্মী মানিকুর রহমান মানিক ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী। সে হল ছাত্রলীগের সক্রিয় কর্মী ও হল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সিয়াম রহমানের অনুসারী। সিয়াম রহমান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেনের অনুসারী।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার রাত ১১টার পর সূর্য সেন হলের ২৪৯ নম্বর কক্ষে অনলাইনে ক্লাস করছিলেন সাঈদি। এ সময় মানিক ও তার কয়েকজন সহযোগী ২৪৯ নম্বর কক্ষে যায়। এ সময় সাঈদি সালাম না দেওয়ায় তাকে অকথ্য ভাষায় গালি দেয়, মানিক। এরপর সাঈদিকে নিজের রুমে ডাকেন মানিক। সেখানে যাওয়ার পর তাকে গালে এবং কানে চড় মারেন মানিক। এরপর এলোপাতাড়ি ভাবে তাকে শারীরিক নির্যাতন শুরু করেন মানিক। কানে চড় মারার কারণে সাঈদি কানে শুনতে পাচ্ছে না।

এ প্রসঙ্গে জানতে অভিযুক্ত মানিকের ব্যবহৃত মুঠোফোনে কল দেওয়া হলে তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।

মাস্টার দা সূর্য সেন হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পদক সিয়াম রহমান বলেন, তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি নিয়ে ঝামেলা হয়েছে বলে জানতে পেরেছি। তেমন বড় কোনো ঘটনা না। কেউ হয়ত বাড়িয়ে বলছে। আজ দুইজনের সাথে কথা বলে বিষয়টি মীমাংসা করে দেব। আমাদের হলে কেউ কাউকে নির্যাতনের কোনো সুযোগ নেই।

সার্বিক বিষয়ে জানতে মাস্টার দা’ সূর্য সেন হলের প্রধ্যক্ষ অধ্যাপক মকবুল হোসেন ভূঁইয়ার সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তাঁকে পাওয়া যায় নি। তবে লিখিত অভিযোগটি গ্রহণ করেছেন বলে জানিয়েছেন হলের আবাসিক শিক্ষক অধ্যাপক মোহাম্মদ মোবারক হোসেন। অধ্যাপক মোবারক জানান, “বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখা হবে।”

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: