পদ্মা সেতুর নাট-বল্টু খুলে ফেসবুক ও টিকটকে ভিডিও পোস্ট দেওয়ার সঙ্গে জড়িত এক তরুণকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার (২৯ জুন) দিবাগত রাতে লক্ষ্মীপুর থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার ওই তরুণের নাম মাহদী হাসান। আজ বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) দুপুরে রাজধানীতে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা মহানগর পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ইউনিট (সিটিটিসি) প্রধান মো. আসাদুজ্জামান এ তথ‌্য জানান।

সিটিটিসি জানায়, সেতুর নাট খুলে ভিডিও তৈরির উদ্দেশ্যে মাহদী রেঞ্চ নিয়ে গিয়েছিলেন। উদ্দেশ্যমূলক রেঞ্চ দিয়ে পদ্মা সেতুর নাট খোলেন। এরপর সেই নাট হাত দিয়ে খুলে ভিডিও তৈরি করেন তিনি।

মাহদির বাড়ি মুন্সীগঞ্জে। তিনি তামিরুল মিল্লাত মাদরাসা থেকে দাখিল ও আলিম পাস করেন। তিনি একসময় ছাত্রশিবিরের সদস্য ছিলেন বলে জানিয়েছেন সিটিটিসি প্রধান মো. আসাদুজ্জামান। তিনি জানান, মাহদী আগে এক সময় ছাত্রশিবিরের সদস্য ছিলেন। তার বাড়ি মুন্সীগঞ্জে। সে তামিরুল মিল্লাত নামে একটি মাদ্রাসা থেকে আলিম ও দাখিল পাস করেন। পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের পরের দিন যখন সবার সঙ্গে সেতু উন্মুক্ত করা হয়, মাহদী রেঞ্জ নিয়ে সেখানে যান। সে রেঞ্জ দিয়ে সেতুর নাট-বল্টু খোলেন। সে নাট-বল্টু খোলার পরিকল্পনা করেই সেতুতে যান। যা পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়া হয়। এরপরই তদন্ত শুরু করে গোয়েন্দারা। তদন্তে তার অবস্থান নিশ্চিত হওয়ার পরই গ্রেপ্তার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মাহদী নাট বল্টু খোলার কথা স্বীকার করেছে। তারপরও তাকে রিমান্ডে নিয়ে এর সঙ্গে আর কারা কারা জড়িত থাকতে পারে সে বিষয়ে বিস্তারিত জানার চেষ্টা করা হবে।

এর আগে রবিবার (২৬ জুন) সন্ধ্যার দিকে ফেসবুকে মাহদির করা একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। ২৬ সেকেন্ডের ভাইরাল এই ভিডিওতে দেখা যায়, পদ্মা সেতুর রেলিংয়ে ব্যবহৃত একটি নাট-বল্টু হাত দিয়ে খুলছেন এক যুবক। পরে আবার নাটটি যথাস্থানে লাগিয়ে দেন তিনি। পরে আরো একটি নাট খুলতে যান ওই যুবক।

ভিডিওতে তাকে বলতে শোনা যায়, ‘এই সেতুর নাট কিন্তু আমি হাত দিয়েই খুলেছি। এখানে অন্য কিছু ব্যবহার করা লাগছে না। ‘ পরে সেই খোলা নাটটি আবার লাগিয়ে দেওয়ার সময় বলেন, ‘এটা কিন্তু নিইনি আমি। লাগিয়ে দিলাম। ‘

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: