দরিদ্র অসহায় মানুষের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে অনন্য মানবিক উদ্যোগ নিয়েছে বান্দরবান জেলা ছাত্রলীগ।‘হ্যালো ছাত্রলীগ’ নামের এই উদ্যোগে যে কেউ ফোন করলেই চলে আসবে অ্যাম্বুলেন্স। রোগীকে দ্রুততম সময়ে পৌঁছে দেবে হাসপাতালে, তবে এ জন্য একটি টাকাও খরচ করতে হবে না। শুক্রবার (১ জানুয়ারি) সকালে বান্দরবান জেলা পরিষদ ভবনের অরুন সারকি টাউন হল রুমে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে জেলা পরিষদের কাছে অ্যাম্বুলেন্সটি হস্তান্তর করে বান্দরবান জেলা ছাত্রলীগ।

বান্দরবান জেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক জনি সুশীল বলেন, বান্দরবানে অনেক গরিব মানুষ আছেন, যারা আর্থিক অভাবের কারণে অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া করে রোগী চট্টগ্রাম মেডিকেল নিয়ে যেতে পারে না। এসব অসহায় মুমূর্ষু রোগীদের উন্নত চিকিৎসা নিশ্চিত করার জন্য আমাদের এ উদ্যোগ। চিকিৎসার অভাবে কারো যেন মৃত্যু না হয়। সুশীল বলেন, কিছু দিন আগে আমাদের ছাত্রলীগ কর্মীর এক ছোট ভাইয়ের বাচ্চা অসুস্থ হলে অ্যাম্বুলেন্সের অভাবে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেলে নিয়ে যেতে না পারাই বাচ্চাটির মৃত্যু হয়। তারপর থেকে ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসের উদ্যোগটি নেওয়া হয়।

বান্দরবান জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি কাউছার সোহাগ বলেন, দুয়েকদিনের মধ্যে একটি হটলাইন নম্বর চালু করব। আর এই নাম্বারে ফোন করলেই সাথে সাথে অ্যাম্বুলেন্স নির্দিষ্ট স্থানে অ্যাম্বুলেন্স পৌঁছে যাবে। আর এই সেবাটি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে দেবে ছাত্রলীগ।

বান্দরবান জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জনি সুশীলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বান্দরবান জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি কাউছার সোহাগ। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রামবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং। বিশেষ অতিথি ছিলেন বান্দরবান জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ক্য শৈ হ্লা, বান্দরবান পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ইসলাম বেবী, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয়, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য, বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের উপ-ধর্মবিষয়ক সম্পাদক উসিং হাই রবিন বাহাদুর প্রমুখ।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: