তীব্র গরমে অস্থির হয়ে উঠেছে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা এবং দেশের অন্যান্য অঞ্চলের মানুষ। গত কয়েকদিন থেকেই চলছে তীব্র তাপদাহ। কোথাও কোথাও দু’এক পশলা বৃষ্টিপাত হলেও গরমের তীব্রতা থেকে রেহাই মেলেনি। দেশের উপর দিয়ে বয়ে চলা এই তীব্র তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে এবং তাপমাত্রা আরো বৃদ্ধি পাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। রোববার (২৪ এপ্রিল) সন্ধ্যায় এমন আভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

চলতি মৌসুমে এ পর্যন্ত আটটি তাপপ্রবাহ বয়ে গেছে। এরমধ্যে দু’টি রূপ নিয়েছে তীব্র তাপপ্রবাহে। গত ১৫ এপ্রিল রাজশাহীতে থার্মোমিটারের পারদ উঠেছিল ৪১ দশমিক ২ ডিগ্রিতে, যা ছিল গত আট বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ। আর রোববার রেকর্ড করা হয়েছে চুয়াডাঙ্গায় ৪১ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা মৌসুমের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। আবহাওয়াবিদ মো. বজলুর রশীদ জানিয়েছেন, পশ্চিমা লঘুচাপের বর্ধিতাংশ হিমালয়ের পাদদেশীয় পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ অবস্থান করছে দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে। এ অবস্থায় আগামী সোমবার (২৫ এপ্রিল) সন্ধ্যা পর্যন্ত সিলেট বিভাগের দু’এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়ার সঙ্গে প্রবল বিজলী চমকানোসহ বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।

এদিকে রাজশাহী, পাবনা, যশোর ও চুয়াডাঙ্গা অঞ্চলে তীব্র তাপপ্রবাহ, রংপুর, দিনাজপুর, নীলফামারী ও পটুয়াখালী অঞ্চলসহ ঢাকা বিভাগ, রাজশাহী ও খুলনা বিভাগের অবশিষ্টাংশের উপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। অর্থাৎ চট্টগ্রাম, সিলেট ও বরিশাল বিভাগ বাদে দেশের অন্য বিভাগগুলোতে তীব্র থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। তা অব্যাহত থাকতে পারে। সারা দেশের দিন ও রাতের তাপমাত্রা সামান্য বাড়বে। ঢাকায় দক্ষিণ/দক্ষিণ-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় বাতাসের গতিবেগ থাকবে ১০-১৫ কিলোমিটার। আগামী মঙ্গলবার (২৬ এপ্রিল) নাগাদ আবহাওয়ার সামান্য পরিবর্তন হবে। বর্ধিত পাঁচ দিনে বৃষ্টি/বজ্রবৃষ্টির প্রবণতা বাড়তে পারে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: