মারুফ আহমেদঃ কুমিল্লা হোমনা উপজেলার রামকৃষ্ণপুর ‘কামাল স্মৃতি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে’ ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে, প্রধান শিক্ষক আবদুল মতিনের অপসারণ ও শাস্থি দাবি করে বৃহস্পতিবার বিক্ষোভ সমাবেশ করেন বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অভিভাবক ও এলাকাবাসী। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ টায় এ বিক্ষোভ সমাবেশ করেন তারা।

বিক্ষোভকারীরা বিভিন্ন অভিযোগ লিখিত প্লে­কার্ড ও ব্যানার বহন করেন এবং আবদুল মতিনের কুশপুত্তলিকা দাহ করেন। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ টায় বিদ্যালয়ে অবস্থান নেয়া ছাত্রী ও শিক্ষকদের সাথে যোগ দেন অভিভাবক সহ এলাকাবাসী। এরপর তারা স্কুল প্রাঙ্গন থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে রামকৃষ্ণপুর বাজার সংলগ্ন ওয়াই সেতুর ঢালে গিয়ে অবস্থান নেন। এসময় বিক্ষোভকারীরা প্রধান শিক্ষক আবদুল মতিন ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন। এরপর তারা আবদুল মতিনের কুশপুত্তলিকা আগুনে পুড়িয়ে ফেলেন। এসময় বিক্ষোভকারীরা আবদুল মতিনকে স্কুলের প্রধান শিক্ষক পদ থেকে অপসারণ এবং তার গ্রেফতার ও শাস্থি দাবী করেন। ছাত্রীকে যৌন হয়রানি,স্কুল ফান্ডের অর্থ আত্মসাৎ এবং সহকর্মীদের সাথে বাজে আচরণের অভিযোগে এনে বিক্ষোভ করেন বলে জানিয়েছেন অংশগ্রহণকারীরা।

অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি শ্রেণীকক্ষে ছাত্রীদের সাথে অশালীন আচরণ করেন এবং তাদের ভয়ভীতি প্রদর্শন করেন। সম্প্রতি এবিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (ফেসবুক) একটি আইডি থেকে একটি পোস্ট ভাইরাল হয়। এরপর থেকেই বিভিন্ন মহল থেকে প্রধান শিক্ষকের এমন বিষয়টি খতিয়ে দেখার দাবি উঠে। চলমান পরিস্থিতিতে এলাকাবাসী স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের দৃষ্টি আকর্ষণ করলেও তার কোন সমাধান আসেনি। গত ৭ জানুয়ারি মঙ্গলবার আবদুল মতিনের প্রতি অনাস্থা জানিয়ে তাকে অপসারণের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার প্রতি আবেদন করেন তারই স্কুলের শিক্ষক-কর্মচারীরা। আর প্রতিকার না পেয়ে, আন্দোলনের ডাক দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: