ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লায় যাত্রীবাহী বাসের গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে খোরশেদ আলম নামে এক পাম্প কর্মচারী নিহত হয়েছেন। সোমবার সন্ধ্যায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়।

এ দুর্ঘটনায় আহত হয়েছে আরও অন্তত ৭ জন। সোমবার দুপুরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক সংলগ্ন জেলার সদর দক্ষিণ উপজেলার বেলতলী এলাকার রিভারভিউ সিএনজি ফিলিং স্টেশনে এ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। নিহত খোরশেদ আলমের বাড়ি জেলার সদর দক্ষিণ উপজেলার লক্ষ্মীপুর গ্রামে।

পুলিশ, প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, যমুনা পরিবহনের একটি বাস (ঢাকা জ-১১-০০১১) রিভারভিউ সিএনজি ফিলিং স্টেশনে গিয়ে গ্যাস ভর্তি করছিল। এ সময় আকস্মিকভাবে ওই বাসের সিলিন্ডারটির বিস্ফোরণ ঘটে। এতে ঘটনাস্থলে ৮ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে ছয়জনকে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এদের মধ্যে খোরশেদ আলমকে (২৭) আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তির পর সন্ধ্যায় সে মারা যায়।

>>আরো পড়ুনঃ  কুমিল্লায় সেনা সদস্য কর্পোরাল ওহিদুজ্জামানকে চাপা দেয়া ঘাতক কভার্ডভ্যান আটক

দুর্ঘটনায় আহত অন্যরা হচ্ছেন- জেলার সদর দক্ষিণ উপজেলার সাওড়াতলী গ্রামের আলী আক্কাছের ছেলে কামাল হোসেন, একই গ্রামের রাসেল, দেবিদ্বার উপজেলার ফতেহাবাদ গ্রামের শরীফ, সদর উপজেলার বারপাড়া এলাকার জুয়েলের ছেলে সিফাত এবং নগরীর ঠাকুরপাড়া এলাকার আশিষ। কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন যমুনা পরিবহনের অপর একটি বাসের চালক আহত কামাল হোসেন জানান, যমুনা পরিবহনের ওই বাসটি যাত্রীবিহীন অবস্থায় রিভারভিউ সিএনজি ফিলিং স্টেশনে গ্যাস ভর্তি করছিল। আমরা পাম্পে অবস্থান করছিলাম। এসময় ওই বাসের গ্যাসের সিলিন্ডারটি বিকট আওয়াজে বিস্ফোরণ হয়।

সদর দক্ষিণ মডেল থানার ওসি মামুনুর রশীদ জানান, আহতদের উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে এবং সিলিন্ডার বিস্ফোরিত বাসটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়। রাত পৌনে ৮টায় রিভারভিউ সিএনজি ফিলিং স্টেশনের মালিক আলী মনসুর ফারুক জানান, ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর পাম্প কর্মচারী খোরশেদ আলম মারা যায়। তার মরদেহ কুমিল্লায় নিয়ে আসা হচ্ছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ