কুমিল্লায় হাঁটু ব্যথা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তির পর ভুল চিকিৎসায় এক রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে শহরের নজরুল এভিনিউয়ে ট্রমা সেন্টার নামের একটি বেসরকারি হাসপাতালে মারা যান তিনি।

৬০ বছর বয়সী ওই রোগীর নাম মোবারক হোসেন। তিনি লাকসাম উপজেলার বাসিন্দা ছিলেন।

তার ভাই আবুল হাসেম জানান, হাঁটুর চিকিৎসা করাতে লাকসাম থেকে মোবারক হোসেনকে কুমিল্লা নিয়ে আসেন স্বজনরা। রাত ৮টায় অপারেশন করার সময় অ্যানেসথেসিয়া দিলে তার মৃত্যু হয়।

তিনি বলেন, ‘আমরা সামান্য হাঁটু ব্যথা আমার ভাইকে হাসপাতালে ভর্তি করাই। ডাক্তার সাফায়েত ইসলাম শাহিন ইনজেকশন দিলে আমার ভাই মারা যায়। আমরা ডাক্তার ও হাসপাতালের মালিকের বিচার চাই।’

স্থানীয়রা জানান, এ ঘটনায় রোগীর স্বজনরা হাসপাতাল ঘিরে ফেলে। এ সময় হাসপাতালের লোকজন ও তাদের মধ্যে লাশ নিয়ে টানাটানিও হয়। দুপক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনাও ঘটে। এ সময় হাসপাতালে ভর্তি এক রোগীও আহত হন। তার মাথা ফেটে গেছে।

তারা আরও জানান, বিক্ষুব্ধদের হামলা থেকে বাঁচতে হাসপাতালটির চিকিৎসক ও কর্মকর্তারা দৌড় দিয়ে পালিয়ে গেছেন। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ারুল হক বলেন, ‘রোগীর স্বজনরা হামলা চালায়। আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছি। সেখানে এখন পুলিশ রয়েছে। তবে নিহতের পরিবার থেকে অভিযোগ পাওয়া যায়নি।’

হাসপাতালের মালিক ডা. আবদুল হক বলেন, ‘ডাক্তার ইচ্ছে করেই রোগীকে মেরে ফেলেনি। এ বিষয়ে পরে বিস্তারিত জানাব।’

চিকিৎসক সাফায়েত ইসলাম শাহিন পলাতক থাকায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: