কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে সাত বছরের এক শিশুকে ধ’র্ষণের অভিযোগে মো. নেছার উদ্দিন নামে এক যুবককে গ্রে’ফতার করেছে পুলিশ।

গত শুক্রবার বিকেলে এ ধ’র্ষণের ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় শনিবার রাতে শিশুটির বাবা বাদী হয়ে নাঙ্গলকোট থানায় নারী ও শিশু নি’র্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন। ওই দিন রাতেই এসআই ফরিদ অভিযান চালিয়ে নেছারকে গ্রে’ফতার করে। রোববার দুপুরে তাকে কুমিল্লা আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

নেছার নাঙ্গলকোট উপজেলার বটতলী ইউপির কাশীপুর উত্তরপাড় এলাকার জালালের ছেলে। তিনি পেশায় শ্রমিক।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, গত শুক্রবার বিকেলে শিশুটির বাবা-মায়ের অনুপস্থিতে নেছার তার হাতে ১৪ টাকার ধরিয়ে দেন। এরপর তাকে কোলে করে কাশীপুর এলাকার একটি পরি’ত্যক্ত বাড়িতে নিয়ে ধ’র্ষণ করেন। পরে শিশুটি বাড়িতে চলে যায়। ঘটনার দিন রাতে ওই শিশুটি অসুস্থ হয়ে চিৎকার করতে থাকে। ভয়ে কাউকে কিছু বলেনি।

পরের দিন শনিবার সকালে স্কুলে যাওয়ার সময় আবার ওই ধ’র্ষক শিশুটিকে ডাকলে সে ভয়ে পালিয়ে গিয়ে তার মায়ের কাছে ঘটনাটি খুলে বলে। ঘটনাটি শুনে ওই শিশুর মা স্থানীয় সমাজ প্রতিনিধিদের কাছে বিচার চায়। কিন্তু সমাজপতিরা বিচার না করে উল্টো ধ’র্ষণের মেডিকেল রিপোর্ট আনার জন্য বলেন। কোনো উপায় না পেয়ে শিশুটির বাবা শনিবার রাতে থানায় মামলা করেন। নেছার পালানোর আগে পুলিশ রাতে অভিযান চালিয়ে কাশীপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রে’ফতার করে।

এ বিষয়ে নাঙ্গলকোট থানার ওসি বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, নেছার প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছে। তাকে কুমিল্লা আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য শিশুটিকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরে’নসিক বিভাগে পাঠানো হয়েছে।