মো. ওমর ফারুকঃ কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে আদালতের নির্দেশে মৃত্যুর ৭ মাস ২৩ দিন পর কবর থেকে সোহেল মিয়া (২১) নামে এক মাইক্রো ড্রাইভারের লাশ উত্তোলণ করেছে জেলা ডিবি পুলিশ।

শনিবার উপজেলার আদ্রা দক্ষিণ ইউপির বেলঘর গ্রামের ব্যাপারী বাড়ী কবরস্থান থেকে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি ও নির্বাহী ম্যাজেস্ট্রেট সাজেদুর ইসলামের উপস্থিতিতে এ লাশ উত্তোলন করা হয়। লাশ ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহত সোহেল ওই গ্রামের আব্দুর ছাত্তারের ছেলে।

স্থানীয় ও মামলা সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরের ৩০ মার্চ রাতে নিজ বাড়ী থেকে সাদ্দাম ও ইউনুছ দুই বন্ধু জরুরি কথা আছে বলে বাড়ী থেকে ডেকে নিয়ে যায় সোহেলকে। পরদিন সকালে ওই গ্রামের মসজিদের পাশে শফিকুর রহমানের পরিত্যাক্ত বাড়ীতে মরদেহ দেখতে পায়। নিহতের পরিবার কোন অভিযোগ ছাড়াই লাশ দাফন সম্পন্ন করে।
পরে সোহেলের পরিবার তার বন্ধুদের সন্দেহ হলে গত ১২ সেপ্টেম্বর নিহতের পিতা আব্দুর ছাত্তার বাদী হয়ে ওই গ্রামের মোস্তফার ছেলে সাদ্দাম হোসেন (২৮) ও আবু তাহেরের ছেলে ইউনুছ (১৯) সহ অজ্ঞাত ৫-৬ জনকে আসামী করে কুমিল্লা আমলি আদালতে মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে জেলা ডিবি পুলিশকে লাশ উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের জন্য নির্দেশ দেন। আদালতের নির্দেশে গতকাল নিহতের লাশ উত্তোলন করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা ডিবি পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোকাদ্দেস হোসেন, এস আই নন্দন সরকার সঙ্গীয় ফৌর্স। ও তাদের সহায়তা করেন নাঙ্গলকোট থানার এস আই মফিজুর রহমান সঙ্গীয় ফোর্স।