কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের টাকায় ‘মুজিববর্ষ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট- ২০২১’ আয়োজনের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে শাখা ছাত্রলীগকে।

প্রশাসনের অর্থে এ টুর্নামেন্ট আয়োজন হলেও ছাত্রলীগ নেতাকর্মীর বাহিরে কোন সাধারণ শিক্ষার্থী অংশগ্রহণের সুযোগ পাননি। শাখা ছাত্রলীগ সভাপতির দাবি এটি তাদের দলীয় টুর্নামেন্ট সেখানে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সহযোগীতা করেছে।

জানা গেছে, মুজিববর্ষ উপলক্ষে আয়োজিত এ টুর্নামেন্টে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থ বরাদ্দ দেওয়া হলেও জার্সিতে আয়োজক হিসেবে রয়েছে ছাত্রলীগের নাম। বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক তিনটি ছাত্র হল থেকে সাত বীরশ্রেষ্ঠ ও ভাষাসৈনিক শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্তের নামে সর্বমোট আটটি দল খেলায় অংশগ্রহণ করতে নাম নিবন্ধন করে।এসব দলে অংশগ্রহণের সুযোগ পাইনি কোন সাধারণ শিক্ষার্থী ।

এমনকি বিভিন্ন সময়ে আয়োজিত বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তঃবিভাগ টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড়দেরও এ টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করতে দেওয়া হয়নি।

গতবছর আয়োজিত বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তঃবিভাগ টুর্নামেন্টের কয়েকটি দলের বেশ কয়েকজন অধিনায়কের সাথে কথা হলে তারা এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন। নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক একটি দলের অধিনায়ক বলেন, ‘প্রশাসনের অর্থায়নে আয়োজিত এ টুর্নামেন্টে বিশ্ববিদ্যালয়ের কোন টপ পারফর্মার নেই। এতে নিঃসন্দেহে টুর্নামেন্টের সৌন্দর্য হারাবে।’

এদিকে এ টুর্নামেন্টের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কত টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে তা জানেন না খোদ অর্থ দপ্তরের পরিচালক। বরাদ্দের বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থ ও হিসাব দপ্তরের পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) কামাল উদ্দিন ভূইয়া বলেন, ‘আমি এ ব্যাপারে কিছু জানিনা। আপনারা ছাত্রলীগকে জিজ্ঞেস করেন কতটাকা বাজেট দেওয়া হয়েছে।’ তবে দপ্তরের পরিচালক হিসেবে তাঁর এ তথ্য জানার কথা কিনা এমন প্রশ্নে তিনি কোন তথ্য দিতে পারবেন না বলে জানান। তবে অনুসন্ধানে জানা যায়, এক শিক্ষকের নামে একটি চেক অনুমোদন দেওয়া হয়। মূলত সেই টাকা থেকেই এ টুর্নামেন্টের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও ক্রীড়া পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক ড. মো: শামিমুল ইসলাম বলেন, এ টুর্নামেন্ট সাধারণ শিক্ষার্থীদের জন্য আয়োজন করা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের নামে একটি আবেদনপত্র এসেছিল। সেই হিসেবেই বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। তাঁরা খেলতে না পারলে বিষয়টা খুবই দুঃখজনক।’

এদিকে শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি ইলিয়াস হোসেন সবুজ এ টুর্নামেন্টকে নিজেদের দলীয় টুর্নামেন্ট দাবি করে বলেন, ‘এ টুর্নামেন্টের বাজেটের একটি অংশ ছাত্রলীগ ম্যানেজ করেছে। এটা ছাত্রলীগের দলীয় টুর্নামেন্ট। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এতে সহযোগীতা করেছে।’

তবে এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি ।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: