ডেস্ক রিপোর্টঃ সরকার সারা দেশে আবাসিকখাতে গ্যাস সংযোগ বন্ধ রাখলেও কুমিল্লায় একটি অসাদূ চক্র জেলার বুড়িচং উপজেলার ময়নামতি এলাকায় প্রায় ৩ কিলোমিটার নতুন করে গ্যাসলাইন বসাচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এজন্য এরই মাঝে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের নীচ দিয়ে ছিদ্র করে জোড়ে-শোরে পাইপলাইন বসানোর কাজ চালিয়ে যাচ্ছে বাখরাবাদের একটি অসাদূচক্র।

সরেজমিন ঘুরে স্থানীয় সুত্রে পাওয়া তথ্যে জানা যায়, জেলার বুড়িচং উপজেলার ময়নামতি ইউনিয়নের কাঠালিয়া, রায়পুর,হরিণধরা এলাকায় গ্যাস সংযোগ নেওয়ার জন্য গত সেপ্টেম্বরের ৫ তারিখ থেকে একটি চক্র কাজ শুরু করে। প্রথমে চক্রটি বাখরাবাদের মুল সরবরাহ লাইন থেকে সংযোগ নিশ্চিত করতে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের বুড়িচং উপজেলার ময়নামতি ইউনিয়নের সাকুরা ষ্টীল মিলস্ সংলগ্ন সড়কের পূর্ব ও পশ্চিম পাশে মাটি কেটে সড়কের নীচ দিয়ে ছিদ্র করে। গত ২ অক্টোবর থেকে চক্রটি ময়নামতির সিন্দুরিয়াপাড়া গ্রামের প্রায় এক কিলোমিটার রাস্তার পাশে মাটি কেটে বাখরাবাদের একটি গাড়ি এসে লোহার পাইপ বসানোর কাজ শুরু করে। এসময় সেখানে কোন ঠিকাদারের লোকজনদের দেখা পাওয়া না গেলেও শ্রমিকদের পাইপ ওয়েল্ডিংসহ সাদা টেপ দিয়ে পাইপ মুড়িয়ে লাইন টানতে দেখা যায়।

তখন কর্মরত শ্রমিকদের কাছে কাজের অনুমতির বিষয়ে জানতে চাইলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন কর্তব্যরত শ্রমিত জানান,বাখরাবাদ থেকে এই কাজটি করা হচ্ছে। এর ঠিকাদারের নাম এনায়েত করিম। এরই মাঝে সড়কটির পশ্চিম পাশে থাকা মুল সরবরাহ লাইন থেকে সড়কের পূর্ব পাশে সড়কের নীচ দিয়ে চক্রটি গর্ত করে প্লাস্টিকের পাইপ বসিয়ে নিয়েছে। শাহজাহান নামের এক ঠিকাদার জানান, উল্লেখিত গ্রামগুলোতে প্রায় দু’যুগ আগে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের ময়নামতি রেশম প্রকল্পের পাশ থেকে সংযোগ টেনেছিল। এতে বাখরাবাদ কর্তৃপক্ষের অনুমতি আছে বলেও তিনি নিশ্চিত করেন। সম্প্রতি ওই লাইনে গ্যাসের চাপ কমে গেলে ভুক্তভোগী গ্রাহকরা নতুন করে একই এলাকার হরিণধরা এলাকায় সড়কের নীচ দিয়ে নতুন করে সংযোগ নিচ্ছে।

স্থানীয় গ্রামবাসী জানান, এমনিতেই গ্যাসের চাপ কম এই এলাকায়। এমুহুর্তে আবারো নতুন করে গ্যাস সংযোগ টানা হলে এলাকার মানুষদের তীব্র জ্বালানী সংকটে পড়তে হবে। কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়ক ছিদ্র করে পশ্চিম পাশ থেকে পূর্বপাশের প্রায় তিন কিলোমিটার এলাকায় নতুন গ্যাসলাইনের বিষয়ে জানতে চাইলে বাখরাবাদ গ্যাস ডিষ্ট্রিবিউশন কোম্পানী লিমিটেড এর জিএম বিজিত কুমার বলেন, এটা মেন্টেনেন্সের কাজ হচ্ছে নতুন কোন কাজ না। তবে সরেজমিন দেখা গেছে মূল সরবরাহ লাইন থেকে নতুন সংযোগ টানতে একেবারে নতুন করে পাইপ বসাচ্ছে চক্রটি ।

এদিকে মহাসড়কের নীচ দিয়ে গ্যাস সংযোগ নেওয়ার যাবতীয় প্রক্রিয়া সম্পন্নের বিষয়ে জানতে চাইলে কুমিল্লা সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী জাফরুল হায়দার বলেন,আমরা ঘটনাস্থলে যাচ্ছি। এরপর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিব।