কুমিল্লার তিতাস উপজেলায় কোরান অবমাননা করার দাবি করে উপজেলার জিয়ার কান্দি ইউনিয়নের দড়িকান্দি গ্রামের কথিত ভন্ড পীর সোহরাব হোসেন আতিকীর বিচারের দাবিতে নির্ববহী কর্মকর্তা(ইউএনও) বরাবর স্বারকলিপি দিয়েছেন ইত্তেফাকুল মুসলিমিন জিয়ারকান্দি ইউনিয়ন এবং তিতাস-দাউকান্দির আলেম ওলামা ও তৌহিদী জনতা।

রবিবার বেলা সাড়ে ১১টায় এই স্বারকলিপি দেন। স্বারকলিপিতে উল্লেখ করেন সোহরাব হোসেন আতিকী আমাদের ইসলাম ধর্মের বিকৃতিকারী, নিজেকে রাসুল দাবী করে, কলেমার মাঝে রাসূলুল্লাহ(সঃ) জায়গাতে নিজের নাম সংযোজন করে ফেৎনা সৃষ্টি করে এবং নারী-পুরুষ এক সাথে মিলে ইবাদত বন্দেগীর নামে অশ্লিল অসামাজিক কার্য কলাপে নিয়োজিত থাকে এবং ধর্মের নামে ফেৎনা সৃষ্টির জন্য গ্রামের ও আশ পাশের এলাকার মানুষ ক্ষিপ্ত হয়ে একাধীকবার বিচার শালিস করলে প্রতি বারই তিনি ক্ষমা প্রার্থনা করে আর এসব করবেন না বলে। পরে পূণরায় আবার তিনি তার কর্মকান্ড চালিয়ে আসছেন। এমন অবস্থায় এলাকার যুব সমাজকে তাহার ভূল শিক্ষাদান থেকে রক্ষা করতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

এসময় স্বারকলিপি প্রদান করে মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন মো. নুরুল ইসলাম নদভী, মাওলানা নাছির উদ্দিন, মুফতি আব্দুল আল মারু, মাওলানা মহসিন, মাওলানা হুসাইন আহমেদ ও মাওলানা হেলাল উদ্দিন।

এদিকে পীর সোহরাব হোসেন আতিকীর নিকট এবিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, যারা আমার বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ এনেছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা এবং তারা কোরআনকে অবমানোনা করেছে। তিনি আরও বলেন আমি কোরানের আলোকে কথা বলি চাইলে আমি প্রমান দেখাতে পারবো।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: