লেবাননে সড়ক দুর্ঘটনায় মো. আলামিন নামে এক বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। জাবেল লেবানন নামে একটি স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) রাতে তার মৃত্যু হয়। তার মরদেহ বর্তমানে হাসপাতালটির হিমঘরে রাখা আছে।

বিজ্ঞাপন

কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার উত্তর চান্দলা গ্রামের আবদু মিয়ার একমাত্র ছেলে আলামিন। বাংলাদেশ দূতাবাসে নাম নিবন্ধনসহ সব অর্থ পরিশোধ করে তিনি দেশে ফেরার অপেক্ষায় ছিলেন। কিন্তু তার আর দেশে ফেরা হলো না।

আলামিনের চাচাতো ভাই লেবানন প্রবাসী মো. মেহেদী জানান, ৫ বোনের একমাত্র আদরের ভাই আলামিন। পরিবারে একটু স্বচ্ছলতা আনার আশায় বিভিন্ন জনের কাছ থেকে ধারদেনা করে প্রায় ৪ লাখ টাকা খরচ করে একমাত্র ছেলেকে ২০১৭ সালে লেবাননে পাঠান আবদু মিয়া। আলামিন লেবাননে আসার পর দালালের প্রতারণায় অবৈধ হয়ে যান। অনেক দিন বেকার ছিলেন তিনি। পরে অন্য একটি ক্লিনিং কোম্পানিতে কাজ শুরু করেন।

তিনি আরও জানান, গত ১২ জুলাই বৈরুতের সুক আল আহাদ এলাকার একটি বিল্ডিংয়ে প্রতিদিনের মতো কাজে যান আলামিন। সকালে রাস্তা পার হওয়ার সময় একটি দ্রুত গতির প্রাইভেটকার পেছন থেকে ধাক্কা দিলে মাথায় প্রচণ্ড আঘাত পান তিনি। পরে তাকে অ্যাম্বুলেন্স জাবেল লেবানন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানায়, তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। পরে চিকিৎসক তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষণ রুমে রেখে চিকিৎসা প্রদান করলেও, তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। অবশেষে ৪ দিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করে বৃহস্পতিবার রাতে মারা যান তিনি।

এদিকে আলামিনের মৃত্যুতে নিজ এলাকাসহ পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। একমাত্র ছেলেকে হারিয়ে দিশেহারা আবদু মিয়া। মরদেহ দ্রুত দেশে পাঠাতে দূতাবাসের সাহায্য কামনা করেছেন আলামিনের পরিবার।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: