বুড়িচং (কুমিল্লা) প্রতিনিধিঃ রোববার সকাল সারে ১০ টায় কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার ষোলনল ইউনিয়নের কামারখাড়া (আলেখারচর কামারখাড়া) ব্রিজ সড়কে এক মানব বন্ধণ অনুষ্ঠিত হয়। নৌবাহিনীর সদস্য মেহেরাব হোসেন কাব্য হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত প্রকৃত আসামীদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও ফাঁসির রায় কার্যকর করার দাবীতে মানব বন্ধণ ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। স্থানীয় এলাকাবাসী সহস্রাধীক নারী পুরুষ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী সহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গরা প্রতিবাদ সভা ও উক্ত মানব বন্ধণে অশংগ্রহণ করেন। প্রকৃত খুনিদের গ্রেপ্তার করে দ্রুত বিচারের মাধ্যমে আসামীদের ফাঁসি কার্যকর করতে প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানিয়ে মানব বন্ধণ ও প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন নিহতের মা নিলুফা বেগম ও বড় ভাই মোশারফ হোসেন টিপু। এছাড়াও এসময় আরো বক্তব্য রাখেন সামজিক সংগঠন তারুণ্যের বাংলাদেশ এর সভাপতি ছাত্রনেতা বঙ্গভাই সজল, হাবিবুর রহমান ইভান প্রমুখ।

এসময় মানব বন্ধণ ও প্রতিবাদ সভায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে উপস্থিত ছিলেন বুড়িচং থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আকুল চন্দ্র বিশ্বাস। উপস্থিত এলাকাবাসী সকলের উদ্দেশ্যে সহোযোগীতা চেয়ে দেয়া বক্তব্যে তিনি বলেন, এমন একজন ছেলের হত্যাকান্ড আমাদেরকেও মর্মাহত ও শোকাহত করেছে। নৌবাহিনীর সদস্য মেহেরাব হোসেনের হত্যাকারীদের ধরতে প্রশাসন সর্বাত্মক চেষ্টা চালাচ্ছে। গোয়েন্দা সংস্থা সহ বেশ কয়েকটি আইন প্রয়োগকারী সংস্থা প্রকৃত আসামীদের ধরতে সুক্ষ ভাবে তদন্ত করছে। আশা করছি খুব দ্রুতই খুনিরা গ্রেপ্তার হবে। আপনাদের কাছে কোন প্রকার ক্লু বা তথ্য প্রমান থাকলে আমাদের তা দিয়ে সহায়তা করবেন। আইনের হাত থেকে মেহেরাবের হত্যাকারীরা কোন ভাবেই পার পাবে না।

উল্লেখ্য গত বৃহস্পতিবার ভোররাতে খুলনা থেকে নৌবাহিনীর ট্রেনিং শেষে চট্টগ্রামে যোগদানের উদ্দেশ্য যাওয়ার আগে কুমিল্লায় মা বাবার সাথে দেখা করতে এসে নিজ গ্রামে দূর্বৃত্তের হাতে খুন হয় মেহরাব। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদে জন্য ৩জন কে আটক করে পুলিশ। স্থানীয় সূত্র জানা যায়, খুলনায় ট্রেণিং শেষে চট্টগ্রামে যোগদান করতে যাওয়ার পথে মা-বাবার সাথে দেখা করার উদ্দেশ্যে কুমিল্লা সেনানিবাস এলাকায় বাস থেকে নেমে গ্রামে যাওয়ার পথে নিজের গ্রামেই গোমতীর তীরে দুবৃর্ত্তরা তাকে গলা কেটে হত্যা করে।

আইনি প্রক্রিয়া শেষে শুক্রবার সকালে মেহেরাব এর নিজ এলাকায় জানাজা ও নৌবাহিনীর প্রধানের পক্ষ থেকে মরণোত্তর সালাম ও সম্মান প্রদর্শন শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয় মেহেরবের লাশ।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: