অসুস্থ মাকে বাড়িতে নিতে এসে বাসের নিচে চাপা পড়ে লাশ হয়ে বাড়ি ফিরলেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) অ্যাকাউন্টিং বিভাগের ছাত্র সুজন।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার কাবিলা বাঙলা গার্টেন রেস্তোরাঁর সামনে শুক্রবার এ দুর্ঘটনা ঘটে।

দুর্ঘটনায় ১৫ বাসযাত্রীসহ অটোচালক, নিহত সুজনের মা, ভাবি আহত হয়েছেন।

সুজন কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার রুপদ্দি গ্রামের রহমত আলীর ছেলে।

দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ হয়ে ঢাকার একটি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন সুজনের মা জাহেদা বেগম। শুক্রবার বাস থেকে নামার পর মাকে নিয়ে অটোরিকশা যোগে বাড়ির উদ্দেশে রওনা হন সুজন। সঙ্গে ছিল ভাবি রুবি আক্তার। মহাসড়ক অতিক্রমের সময় ঢাকাগামী এনা পরিবহনের একটি বাস অটোরিকশাটিকে চাপা দেয়। এ সময় বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে খাদে পড়ে উল্টে যায়, এতে ঘটনাস্থলে নিহত হয় সুজন।

ময়নামতি হাইওয়ে ক্রসিং থানার ওসি আলমগীর হোসেন জানান, একজন নিহতের খবর পেয়েছি। পুলিশ পৌঁছার আগে মরদেহ নিয়ে যায় স্বজনরা। দুর্ঘটনা কবলিত বাসটিকে উদ্ধার করে থানায় আনা হয়েছে। চালক ও হেলপার পলাতক রয়েছে।