লাকসামে প্রবাসীর বাড়িতে সন্ত্রাসী হামলা ভাংচুর-লুটপাট : আহত-৪

লাকসাম প্রতিনিধিঃ লাকসামে এক প্রবাসীর বাড়িতে সন্ত্রাসী হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনায় মহিলা ও শিশুসহ চারজন আহত হয়েছে। আহতদেরকে লাকসাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। ঘটনাটি ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার কান্দিরপাড় ইউপির ষোলাপুকুরিয়া গ্রামের প্রবাসী রফিকুল ইসলামের বাড়িতে। ওইদিন রাতেই প্রবাসীর স্ত্রী মিনুয়ারা খাতুন বাদী হয়ে ৮জনকে অভিযুক্ত করে লাকসাম থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করে। সন্ত্রাসী হামলার সংবাদ পেয়ে লাকসাম থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ওইদিন রাতে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে সৌদি প্রবাসী রফিকুল ইসলামের বাড়িতে একই গ্রামের মনির হোসেনের ছেলে মেহেদী হাসানের নেতৃত্বে ২০/২৫জন সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। এসময় সন্ত্রাসীরা বাড়ির আসবাবপত্র ভাংচুর করে। ভাংচুর শেষে ঘরে থাকা নগদ ৪ লক্ষ্য টাকা ও ১০ভরি স্বার্ণালংকারসহ প্রায় ১০লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। হামলাকারীদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে প্রবাসী রফিকুল ইসলাম (৪০), স্ত্রী মিনুয়ারা খাতুন (৩৫), ভাতিজা হুমায়ুন কবির (১৭), ভাগিনা রাব্বি (১১) গুরুতর আহত হয়। সংবাদ পেয়ে লাকসাম থানা পুলিশের এস.আই নাজিম উদ্দিন ও এস.আই কামাল হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। ওইদিন রাতেই প্রবাসীর স্ত্রী মিনুয়ারা বেগম বাদী হয়ে একই গ্রামের মনির হোসেনের ছেলে মেহেদী হাসান, আবদুল মান্নানের ছেলে শাহাদাত হোসেন, মৃত. আমজাদ আলীর ছেলে গফুর মিয়া, তার ছেলে কবির হোসেন, মতিন মিয়ার স্ত্রী নাছিমা বেগম, পাশ্ববর্তী চেঙ্গাচল গ্রামের ছিদ্দিকুর রহমানের ছেলে ইয়াছিন মিয়া, সোলেমান মিয়ার ছেলে সোহেল, কামড্ডা গ্রামের বাবুল হোসেনর সোহেল মিয়াকে অভিযুক্ত করে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করে। হামলার ঘটনার পর থেকে ওই পরিবারে আতংক বিরাজ করছে।

এ বিষয়ে লাকসাম থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মনোজ কুমার দে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন:

ভালো লাগলে শেয়ার করুনঃ