ডেস্ক রির্পোটঃ কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডে এইচএসসি’র শতভাগ পাশ ও জিপিএ ৫ প্রাপ্ত তালিকায় সেরা কলেজের তালিকায় স্থান করে নিয়েছে জেলার মফস্বলের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সোনার বাংলা কলেজ।বুড়িচং উপজেলায় ২০০০ সালে কলেজটি প্রতিষ্ঠার পর থেকে শিক্ষার মানোন্নয়নে সব সময় এগিয়ে থেকে নিজেদের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমান করতে সক্ষম হয়েছে।

চলতি বছর ২০১৯ সালে কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের অধীন কলেজটি থেকে ৩৬৩টি পরীক্ষা দিয়ে ১০৪ জন এ প্লাসসহ শতভাগ পাশ করেছে।

এছাড়া শতভাগ পাশ ও জিপিএ ৫ প্রাপ্ত তালিকায় কলেজটি শিক্ষাবোর্ডের অধীন ছয় জেলার মধ্যে ২য় অবস্থানে রয়েছে।

ভালো ফলাফলের বিষয়ে অনুভূতি প্রকাশ করে কলেজটির অধ্যক্ষ আবু ছালেক মো:সেলিম রেজা সৌরভ বলেন, কুমিল্লা জেলার এতদ্বঞ্চলে সাধারণ মানুষের কাছে শিক্ষার আলো ছাড়িয়ে কলেজটি বদ্ধ পরিকর।

এ কলেজটির প্রতিটি শিক্ষক শিক্ষার্থী অভিভাবক এমনকি ম্যানেজিং কমিটির সদস্যরা সবাই মিলে বছরজুড়ে সচেষ্ট থাকে লেখাপড়ার মানোন্নয়নে। যে কারনে কলেজটি প্রতি বছর কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডে অন্যান্য অসাধারণ ফলাফল করতে সক্ষম হয়। আমাদের এমন ভালো ফলাফলের ধারাবাহিকতা রক্ষায় আমরা সব সময় অঙ্গিকারাবদ্ধ।

কুমিল্লা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের অধীনে চাঁদপুর, নোয়াখালী, কুমিল্লা, ফেনী, ব্রাহ্মনবাড়িয়া ও লক্ষ্মীপুরসহ ৬ জেলায় এবার এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় পাসের হার ৭৭ দশমিক ৭৪ শতাংশ। শিক্ষাবোর্ডের অধীনে ৬ জেলার মধ্যে চাদঁপুর জেলা শীর্ষে রয়েছে। কুমিল্লা রয়েছে দ্বিতীয় স্থানে এবং ফেনী জেলা গতবারের মত সর্বনিম্নে রয়েছে।

বুধবার (১৭ জুলাই) দুপুরে কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ড. মো. আসাদুজ্জামান এ ফলাফল ঘোষণার সময় এ তথ্য জানা গেছে।

কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড সূত্র জানায়, এ বোর্ডে পাশের হারের দিক থেকে প্রথম স্থানে রয়েছে চাদঁপুর জেলা। চাদঁপুর জেলার পাশের হার ৮৬.৮৭ শতাংশ। চাদঁপুর জেলায় ৬২টি কলেজের ১৪ হাজার ৩৫৯ শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে, যার মধ্যে ১২ হাজার ৪৭৪ জন পাশ করেছে। পাশের হারে এ জেলায় মেয়েরা এগিয়ে রয়েছে। এ জেলায় ৫ হাজার ৩৭২ জন ছেলে এবং ৭ হাজার ১০২ জন মেয়ে পাশ করেছে।

পাশের হারের দিক থেকে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে কুমিল্লা জেলা। এ জেলার পাশের হার ৮২.৯০ শতাংশ। কুমিল্লা জেলায় ১৫০টি কলেজের ৩১ হাজার ৭৩ শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করে, যার মধ্যে ২৫ হাজার ৭৬১ জন পাশ করেছে। পাশের হারে এ জেলায় মেয়েরা এগিয়ে রয়েছে। এ জেলায় ১২ হাজার ৩০ জন ছেলে এবং ১৩ হাজার ৭৩১ জন মেয়ে পাশ করেছে।

পাশের হারের দিক থেকে বি-বাড়িয়া জেলা তৃতীয় স্থানে রয়েছে। এ জেলায় পাশের হার ৭৫.৩১ শতাংশ। এ জেলায় ৫৪টি কলেজের ১৩ হাজার ৩৮৯ শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে, যার মধ্যে ১০ হাজার ৮৩ জন পাশ করেছে। পাশের হারে এ জেলায় মেয়েরা এগিয়ে রয়েছে। এ জেলায় ৪ হাজার ৮১ জন ছেলে এবং ৬ হাজার ২ জন মেয়ে পাশ করেছে।

পাশের হারের দিক থেকে চতুর্থ স্থানে রয়েছে নোয়াখালি জেলা। এ জেলায় পাশের হার ৭৫.২১ শতাংশ। এ জেলায় ৪৫ টি কলেজের ১৭ হাজার ৩৩৬ শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে, যার মধ্যে ১৩ হাজার ৩৮ জন পাশ করেছে। এ জেলায়ও পাশের হারে মেয়েরা এগিয়ে রয়েছে। এ জেলায় ৬ হাজার ৩৫২ জন ছেলে এবং ৬ হাজার ৬৮৬ জন মেয়ে পাশ করেছে।

পাশের হারের দিক থেকে ৫ম স্থানে রয়েছে লক্ষ্মীপুর জেলা। এ জেলায় পাশের হার ৬৮.৮১ শতাংশ। এ জেলায় ৩৪টি কলেজের ৮ হাজার ৩৩৩ শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে, যার মধ্যে ৫ হাজার ৭৩৪ জন পাশ করেছে। এ জেলায়ও পাশের হারে মেয়েরা এগিয়ে রয়েছে। এ জেলায় ২ হাজার ৭৬৬ জন ছেলে এবং ২ হাজার ৯৬৮ জন মেয়ে পাশ করেছে।

পাশের হারের দিক থেকে গতবারের ন্যায় এবারও ফেনি জেলা সবার নিচে রয়েছে। এ জেলায় পাশের হার ৬৩.৫১ শতাংশ। এ জেলায় ৪১টি কলেজের ৯ হাজার ৮৭০ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে, যার মধ্যে ৬ হাজার ২৬৮ জন পাশ করেছে। এ জেলায়ও পাশের হারে মেয়েরা এগিয়ে রয়েছে। এ জেলায় ২ হাজার ৭৩১ জন ছেলে এবং ৩ হাজার ৫৩৭ জন মেয়ে পাশ করেছে।

কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডে এইচএসসি’র ফলাফলে সেরা কলেজের তালিকায় স্থান করে নিয়েছে জেলার মফস্বলের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সোনার বাংলা কলেজ।বুড়িচং উপজেলায় ২০০০ সালে কলেজটি প্রতিষ্ঠার পর থেকে শিক্ষার মানোন্নয়নে সব সময় এগিয়ে থেকে নিজেদের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমান করতে সক্ষম হয়েছে।