ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লার কোতয়ালী মডেল থানা এলাকার গোবিন্দপুর রেলগেইট সংলগ্ন স্থানে অবস্থিত হোসনেয়ারা বেগম (৫০) নামে এক ‘চা’ দোকানদার থেকে বিশ হাজার টাকা চাঁদা না পাওয়ায় ফিল্মি স্টাইলে আগ্নেঅস্ত্র ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে দোকান ও বাড়ীঘর ভাংচুর করেছে স্থানীয় বখাটেরা।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে।

কুমিল্লা র‌্যাব-১১ সিপিসি ও কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানায় দায়েরকৃত অভিযোগের সুত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার রাতে হোসনেয়ারা বেগম এর চা দোকান থেকে বিশ হাজার টাকা দাবী করে করে একই এলাকার মনির, বিজয়, মিথনগন নামে কয়েকজন স্থানীয় যুবক।

তাদের দাবীকৃত চাদাঁর টাকা না দেওয়ায় হোসনেয়ারা ও তার মেয়ে রানী ও ছেলে রুবেলকে ঘর থেকে না বের হওয়ার জন্য হুমকী দেয়। এর পরদিন শনিবার সকাল আনুমানিক ১০ টার সময় চাদাঁ না পাওয়ার ক্ষোভকে কেন্দ্র করে মনির, বিজয়, মিথন সহ আরো ১৮ থেকে ২০ জন অ’স্ত্রসহ যুবক হোসনেয়ারা বেগমের চায়ের দোকান ও দোকানের আসবাবপত্র ভাং’চুর করে বিভিন্ন মালামাল ন’ষ্ট করে দেয়।

দোকান ভাংচুর এর সময় বাধাঁ দিলে অ’স্ত্রধারী যুবকেরা ধাঁরালো দেশীয় অস্ত্রদিয়ে ‘চা’ দোকানদান হোসনেয়ারা বেগমের বাম হাতের কব্জির উপরের অংশে কোপ দিয়ে গুরুত্বর ভাবে জখম করে।

সেই সাথে তার মেয়ে রোমানা আক্তার রাণীর ডান হাতের বাহুতে ছুরিকাঘাত করে আহত করে। ঐ সময় স্থানীয়রা প্রতিবাদ করতে গেলে তাদের বাড়িঘর ভাংচুর করা হয়। ভাংচুর এর সময় বাড়ির দরজা, আসবাবপত্র সহ একটি মটরসাইকেল সম্পূর্ণ ভাবে কোপিয়ে নষ্ট করে দেয়। যার ফলে লক্ষাধিক টাকার আর্থিক ক্ষতি হয়। পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার পূর্বক কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে ।

ঘটনার পর হামলার মূল হোতা ১১ জন এর নাম উল্লেখ্য করে এবং অজ্ঞাতনামা আরো ১৮/২০ কে আসামী করে চা দোকানদার হোসনেয়ারা বেগম এর ভাইয়ের মেয়ে সুমি আক্তার(২৮) কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানা ও কুমিল্লা র‌্যাব-১১ সিপিসি কোম্পানী কমান্ডার এর বরাবর অভিযোগ করে। পরে কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

অন্যদিকে , এই রকম ঘটনার স্বাক্ষী হতে একদমই প্রস্তুত ছিল না বলে জানান এলাকাবাসী। তারা জানায়, শনিবার সকালে ধারালো অস্ত্র ও একজনের হাতে আগ্নেআস্ত্র দেখে তারা ভয় পেয়ে কেউ সামনে আসতে পারেনি । প্রতিবেশি কেউ একজন কৌশলে মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারন করলে ঘটনা আরো খারাপ দিকে মোড় নেয়, সেই সময় থেকে বিকাল পর্যন্ত দফায় দফায় বাড়িঘর এর দরজা, জানালা, গেইট ও মূল্যবান আসবাবপত্র ভাংচুর করে।

এ বিষয়ে কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনোয়ারুল হক জানান , কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশের একটি চৌকশ টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে । ঘটনায় যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক ব্যাবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান। তিনি আরো জানান ঘটনার দিন গোপনে ধারন করা ছবি ও ভিডিও আমাদের কাছে আছে ।

এ দিকে আগ্নে অস্ত্র নিয়ে হামলার বিষয়ে কুমিল্লা র‌্যাব-১১ সিপিসি কোম্পানী কমান্ডার প্রণব কুমার বলেন, অভিযোগ পেয়েছি, সেই সাথে আগ্নেঅস্ত্র ও দেশীয় অস্ত্র হাতে যুবকদের ভিডিও ফুটেজ ও ছবি আমাদের কাছে আছে । অস্ত্রধারী ও ঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় আনতে র‌্যাবের অভিযান অব্যাহত আছে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: