নিজস্ব প্রতিবেদকঃ কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলা সদরের গত ১৩অক্টোবর শুক্রবার রাতে অস্ত্রপচারের মাধ্যমে একটি বেসরকারি হাসপাতালে দুই মাথাবিশিষ্ট একটি ছেলে শিশুর জন্ম হয়েছিল। জন্মের ১৯ দিন পর রবিবার বিকালে ওই শিশু হাসান হোসাইন এর মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে।

জানা যায়,গতকাল সকালে থেকে শিশুটি হঠাৎ অসুস্থ হলে আজ রবিবার সকালে তাকে দেবিদ্বার সরকারী হাসপাতালে আনা হলে তার অবস্থ্রা অবনতি দেখে কর্তব্যরত ডাক্তার কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরনের নির্দেশ দেন। ওই জোড়া অসুস্থ শিশুটিকে কুমিল্লা হাসপাতাল নেওয়া পথে বিকাল ৪টায় দিকে তার মৃত্যু হয়। বাঙ্গরা থানার সিমানার পাড় গ্রামের ওমান প্রবাসী সাদ্দাম হোসেনে স্ত্রী মরিয়ম বেগম (২৪)এর সিজারের মাধ্যমে শিশুটিকে জন্ম দেয়ার পরই বিভিন্ন মিডিয়ায় ফলাও করে সংবাদ করা প্রচার হয়েছিল।

উল্লেখ্য গত ১৩অক্টোবর শুক্রবার বিকেলের দিকে জেলার মুরাদনগর উপজেলার বাঙ্গরা থানার সীমানার পাড় গ্রামের ওমান প্রবাসী সাদ্দাম হোসেনের স্ত্রী কে দেবিদ্বার সেবা হসপিটালে ভর্তি করা হয়। আলট্রাসনোগ্রাফি রিপোর্টে ২টি শিশুর কথা উল্লেখ থাকলেও রাতে গাইনি বিশেষজ্ঞ ডাঃ মির্জা আসাদুজ্জামান রতনের প্রচেষ্টায় সিজারের মাধ্যমে ২ মাথা বিশিষ্ট জোড়া মাথার একটি ছেলে সন্তানের জন্ম দেয় মরিয়ম। ডাক্তাররা প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে শিশুটিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দেন। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ১৪ অক্টেবর শনিবার সকালে ওই নবজাতকে ঢামেকে শিশু সার্জারীতে ভর্তি করা হয়েছি। কিছুদিন পর তাকে বাড়িতে নিয়ে আসে। গতকাল সকালে থেকে শিশুটি হঠাৎ অসুস্থ হলে কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতালে নেওয়ার পথে মৃত্যুহয়।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: