কুমিল্লার মনোহরগঞ্জে ধর্ষণচেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে এক প্রবাসীর স্ত্রীকে কুপিয়ে জখম করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার (১২ এপ্রিল) সকালে উপজেলার বাইশগাঁও ইউনিয়নের মান্দারগাঁও গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী পারভীন বেগম (৩৬) বাদি হয়ে শনিবার রাতে মনোহরগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পারভীন বেগম মান্দারগাঁও গ্রামের আঠিয়া বাড়ির মৃত সৈয়দ আহম্মেদের ছেলে সৌদি প্রবাসী শাহজাহানের স্ত্রী। স্বামী প্রবাসে থাকার সুবাধে তার বাসুর গোলাপ হোসেন (৫০) বিভিন্ন সময় তাকে অনৈতিক কাজের প্রস্তাব দিয়ে উত্যক্ত করে আসছিলো। বিষয়টি তার স্বামীকে অবগত করলে তিনি মোবাইল ফোনে একাধিকবার গোলাপ হোসেনকে সতর্ক করেন। শনিবার সকালে সন্তানদের অনুপস্থিতির সুযোগে পারভীন বেগমের বসতঘরে প্রবেশ করে গোলাপ হোসেন তার শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে। এসময় তিনি বাধা প্রদান করায় গোলাপ হোসেন তাকে এলোপাতাড়ি মারধর শুরু করে। পারভীন বেগমের চিৎকার শুনে তার ছেলে-মেয়ে ছুটে আসলে ঘরে থাকা ধারালো দা দিয়ে তাকে আঘাত করে অভিযুক্ত গোলাপ হোসেন। এতে পারভীন বেগমের মাথায় মারাত্মক জখম হয়। আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে মনোহরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। প্রাথমিক চিকিৎসার পর ওইদিন রাতে তিনি বাদি হয়ে মনোহরগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

নাম না প্রকাশের শর্তে স্থানীয়রা জানান, অভিযুক্ত গোলাপ হোসেন উশৃঙ্খল প্রকৃতির। স্থানীয় বিভিন্ন মানুষকে তিনি মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করে আসছেন। তার উশৃঙ্খল আচরণে গ্রামের বাসিন্দারা অতিষ্ঠ। তারা গোলাপ হোসেনের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগের সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেন।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত গোলাপ হোসেন বলেন, দীর্ঘদিন ধরে তাদের সাথে আমাদের পারিবারিক বিরোধ চলে আসছে। এরই প্রেক্ষিতে আমাকে সামাজিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন করতে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করা হয়েছে।

অভিযোগ প্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিৎ করে মনোহরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মেজবাহ উদ্দিন ভূঁইয়া বলেন, ‘লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: