কুমিল্লার মনোহরগঞ্জে দুই ভাই মিলে সড়কের ওপর রিকশার চেইন দিয়ে বৃদ্ধকে এক (৭০) অমানবিকভাবে পেটানোর ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে ফুলপুকুরিয়া গ্রামের মান্দারগাঁও বাজারের পাশে মনোহরগঞ্জ উপজেলা সড়কের ওপর। পেটানোর অভিযোগে ওই বৃদ্ধ মনোহরগঞ্জ থানায় দুই অভিযুক্তসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। মনোহরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেসবাহ উদ্দিন ভূঁইয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

মারধরের শিকার বৃদ্ধ নূরুল আমিন ফুলপুকুরিয়া গ্রামের বাসিন্দা। দুই ভাতিজা মাঈন উদ্দিন ও মনির হোসেন তাকে পিটিয়েছে। অভিযুক্ত দুজন একই গ্রামের খোরশেদ আলমের ছেলে।

মনোহরগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাহবুবুল কবির জানান, গত ২ জুন সম্পত্তির বিরোধে সড়কের ওপর এক বৃদ্ধকে মারধরের এই ঘটনা ঘটে। ভিডিও ধারণ এবং ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ততা থাকায় রাসেল নামে এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। পরে জানা যায়, তার বিরুদ্ধে চুরির মামলা রয়েছে। ওই মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দাদের সূত্র জানা যায়, মারধরের শিকার বৃদ্ধ নূরুল আমিন ও তার ভাই খোরশেদ আলমের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে সম্পত্তির দ্বন্দ্ব রয়েছে। পুকুরের পানি সেচ এবং মাছ নিয়ে নতুন দ্বন্দ্বের জেরে বৃদ্ধকে একা পেয়ে সড়কের ওপর রিকশার চেইন দিয়ে নির্মমভাবে পিটিয়ে আহত করে স্থানীয় খোরশেদ আলমের দুই ছেলে মাঈন ও মনির। মারধরের ভিডিও ধারণ করে ফেসবুকে ছেড়ে দেওয়ার পর মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে হয়ে পড়ে। অভিযুক্তদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে প্রতিবাদ করেন স্থানীয়রা।

ওসি জানান, অভিযুক্ত মাঈন ও মনির এবং তাদের বাবা খোরশেদ আলমসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন নূরুল আমিন। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আসামিদের পায়নি। তারা পলাতক রয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত সবাইকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশ মাঠে রয়েছে। শিগগিরই তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: