নিজস্ব প্রতিবেদকঃ কুমিল্লা উত্তর জেলা বিএনপির সভাপতি মো. খোরশেদ আলম (৬৬) আর নেই। আজ সোমবার রাত সাড়ে ৮টায় রাজধানীর একটি হাসপাতালে তিনি  ইন্তেকাল করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

খোরশেদ আলমের ভাতিজা ডা. সাইফুল ইসলাম বাপ্পী মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

খোরশেদ আলম স্ত্রী, এক ছেলে ও তিন মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তাঁর মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

খোরশেদ আলম দীর্ঘদিন ধরে লিভার, কিডনি, শ্বাসকষ্টসহ বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন।

খালেদা জিয়া, ফখরুল ও মোশাররফের শোক

খোরশেদ আলমের মৃত্যুতে বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

আজ এক শোকবার্তায় বিএনপির চেয়ারপারসন বলেন, ‘মরহুম খোরশেদ আলম জীবদ্দশায় সকল অগণতান্ত্রিক শক্তির বিরুদ্ধে মানুষের মৌলিক ও গণতান্ত্রিক অধিকার আদায়ের আন্দোলনে নিজেকে সম্পৃক্ত করেছিলেন। কুমিল্লা উত্তর জেলা বিএনপিকে সুসংগঠিত করতে তিনি নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়েছেন। সাবেক রাষ্ট্রপতি শহীদ জিয়াউর রহমান বীর উত্তম প্রবর্তিত বহুদলীয় গণতন্ত্র ও বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদী রাজনীতিতে বিশ্বাসী মরহুম খোরশেদ আলম আজীবন দলীয় আদর্শের প্রতি ছিলেন অবিচল। তাঁর মৃত্যুতে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি একজন দক্ষ, কর্মনিষ্ঠ ও শহীদ জিয়ার আদর্শ বাস্তবায়নে নিবেদিতপ্রাণ সংগঠককে হারালো।’

খালেদা জিয়া মরহুম খোরশেদ আলমের রুহের মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারবর্গ, নিকটজন, গুনগ্রাহী ও শুভানুধ্যায়ীদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

অপর এক শোকবার্তায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কুমিল্লা উত্তর জেলা বিএনপির সভাপতি আলহাজ খোরশেদ আলমের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, তাঁর মতো ত্যাগী ও আদর্শবাদী নেতার মৃত্যুতে যে ক্ষতি হলো তা সহজে পূরণ হবার নয়। কুমিল্লা উত্তর জেলা বিএনপির নেতাকর্মীদের সুসংগঠিত করে সংগঠনকে শক্তিশালী ভিত্তির ওপর প্রতিষ্ঠিত করতে তার অবদান অনস্বীকার্য।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মরহুম খোরশেদ আলমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে শোকাহত পরিবারের সদস্যবর্গ, আত্মীয়স্বজন ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

অনুরুপ এক শোকবার্তায় বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন কুমিল্লা উত্তর জেলা বিএনপির সভাপতি আলহাজ খোরশেদ আলমকে বিএনপির একজন নিবেদিতপ্রাণ নেতা হিসেবে আখ্যায়িত করে বলেন, তাঁর  মৃত্যুতে কুমিল্লা উত্তর জেলা বিএনপির যে ক্ষতি হলো তা সহজে পূরণ হবার নয়। আমি তাঁর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করছি। দোয়া করি মহান রাব্বুল আলামীন যেন তাঁকে বেহেস্তবাসী করেন। আমি তাঁর রুহের মাগফিরাত কামনা করছি এবং শোকে ম্রিয়মান পরিবারবর্গ, আত্মীয়স্বজন ও গুণগ্রাহীদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: