ডেস্ক রিপোর্টঃ কুমিল্লার দাউদকান্দিতে এক গরুর মাংস ব্যবসায়ীকে টাকার জন্য হত্যার অভিযোগ করেছে তার পরিবার। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে দাউদকান্দি পৌরসভার ভবনের দক্ষিন পার্শে। নিহত গরুর মাংস ব্যবসায়ী হোসেন মিয়া (৩৫) পৌরসভার সদরের কেডিসি ঘাটের মৃত আব্দুল রশিদের ছেলে। এঘটনার জড়িত সন্দেহে তার প্রেমিকা দ্বিতীয় স্ত্রী বলে দাবীদার রোজিনা আক্তার(৩৮) ও তার ছেলে আন্তর (১৯)কে আটক করেছে দাউদকান্দি মডেল থানা পুলিশ। আজ শুক্রবার নিহত ব্যবসায়ী হাসেন মিয়া  লাশ উদ্ধার করে ময়না তন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

দাউদকান্দি মডেল থানা ওসি তদন্ত মোঃ নুরুল ইসলাম বলেন, গরুর মাংস ব্যবসায়ীর হোসেন মিয়া লাশ উদ্ধার করে ময়না তন্তের জন্য কুমিল্লায় প্রেরণ করা হয়েছে। তবে নিহত ব্যবসায়ীর দ্বিতীয় স্ত্রী বলে দাবীদার রোজিনা আক্তারকে এক বছর আগে নিহত ব্যবসায়ী হোসেন মিয়া বিয়ে করেছে জিজ্ঞাসাবাদে সে জাসায়। এ ঘটনা সাথে জড়িত সন্দেহে তাকে ও আগের সংসারের ছেলে আন্তরকে আটক করা হয়েছে। ময়না তদন্তের রির্পোট না পাওয়া পর্যন্ত হত্যার বিষয়টি নিশ্চিত ভাবে বলা যাচ্ছে না।

পুলিশ ও নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, দাউদকান্দি বাজারের গরুর মাংস ব্যবসায়ী হোসেন মিয়া গতকাল বৃহস্পতিবার সারে চার লাখ টাকা নিয়ে গরু কিনার জন্য চান্দিনা বাজার যায়। সেখান থেকে এক লাখ ৪০ হাজার টাকা নিয়ে গরু কিনে বাকী টাকা নিয়ে প্রথম স্ত্রী বাসায় না গিয়ে রাতে দ্বিতীয় স্ত্রী রোজিনার আক্তারের বাসায় ওঠে।

পরে রাতে পেট ব্যাথা কারনে অজ্ঞান হয়ে পড়লে প্রথমে এলহাম হাসপাতালে পড়ে তার অবস্থার অবনতি হলে উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স গৌলীপুরে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। প্রথম স্ত্রী রিনা আক্তার তার স্বামীর মৃত্যুও সংবাদ খবর পেয়ে তার পরিবারের লোকজন জানার পর হাসপাতালে যায়। নিহতের ছোট ভাই মোঃ হাছান মিয়া পুলিশকে খবর দিলে দ্বিতীয় স্ত্রী রোজিনা আক্তার ও তার ছেলে পালিয়ে যাওয়ার সময় তাদেরকে আটক করে।

সূত্রঃ কালের কণ্ঠ

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: