মোঃ ফখরুল ইসলাম সাগরঃ কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার ও বাঙ্গুরী উচ্চ বিদ্যালয়’র নবম শ্রেণীর এক ছাত্রী শাহিনূর আক্তার নামে মায়ের সাথে অভিমান করে রোববার দুপুরে নিজ ঘরে গলায় উড়না পেচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে জানা গেছে। সে উপজেলার গুনাইঘর গ্রামের আল-আমিন’র মেয়ে।
নিহতের ভাই রাজীব জানায়, আমার ৫ বোনের মধ্যে শাহিনূর তৃতীয় ছিল। ঘটনার সময় বাড়িতে আমার ছোট বোন শাহিনূর ছাড়া আর কেহ ছিলনা। আমি মসজিদ থেকে নামাজ শেষে আমার কক্ষে ঢোকার চেষ্টা করে দখি ভেতর দিয়ে দরজা বন্ধ। পরে অনেক চেষ্টা করেও কারোর খোঁজ না পেয়ে মই এনে ঘরের ভেন্টিলেটার দিয়ে ঘরে প্রবেশ করে দেখি বোন ঘরের পাইরের (তীরের) সাথে উড়না দিয়ে ফাঁস লাগিয়ে ঝুলে আছে। আমি তাকে উপরের উঠালেও গলার ফাঁস খুলতে পারি নাই। পরে আমার চিৎকারে বাড়ির লোকজন আসলেও দরজা বন্ধ থাকায় কেহ ঘরে ঢুকতে পারেনি। পরে তাকে ছেড়ে দিয়ে দরজা খুললে বাড়ির লোকজনের সহায়তায় তাকে নামিয়ে এনে সোয়া ২টায় দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসি। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করে। সংবাদ পেয়ে দেবিদ্বার থানার উপ-পরিদর্শক (এস.আই) খাইরুল আলম দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে শাহিনূর’র মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে দেবিদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মোঃ মিজানুর রহমান জানান, এক স্কুল ছাত্রী গলায় ফাঁসী দিয়ে আত্নহত্যা করে নিহত হওয়ার সংবাদ পেয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে তার মৃত দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। আগামিকাল সোমবার সকালে ময়না তদন্তের জন্য কুমেক মর্গে প্রেরন করা হবে।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: