কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার খাড়াতাইয়া ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে সড়কের পাশের সরকারী গাছ কাঁটার অভিযোগ উঠেছে। তবে অধ্যক্ষের দাবী গাছটি মাদ্রাসার মালিকীয় ভূমির। এ বিষয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত না হওয়া পর্যন্ত গাছটি না নেয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন।

জানা যায়, বুড়িচং উপজেলার ষোলনল ইউনিয়নের খাড়াতাইয়া ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মোঃ মিজানুর রহমান কুমিল্লা-মীরপুর সড়কের পাশের একটি ৫০ বছরের পুরনো কড়ই গাছ কেঁটে ফেলে।

সরকারী গাছ কেঁটে ফেলার খবরে মঙ্গলবার উপজেলা বন কর্মকর্তা একেএম লুৎফুল্লাহ কে সঙ্গে নিয়ে ঘটনাস্থলে আসে বুড়িচং উপজেলা সহকারী কমিশানর (ভূমি) শারমিন আক্তার। তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জানান, পরবর্তী সিদ্ধান্ত না দেয়া পর্যন্ত গাছটি এই স্থানেই থাকবে।
মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মোঃ মিজানুর রহমান জানান, সড়কের পাশের ভূমিটি মাদ্রাসার নিজস্ব জায়গা। এই স্থানে একটি ডোবা ছিলো। সম্প্রতি সময়ে ডোবায় মাটি ভরাট করে মাদ্রাসার জন্য বঙ্গবন্ধু ছাত্রাবাস করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। যে গাছটি কাঁটা হয়েছে সেটি মাদ্রাসার মালিকীয় ভূমিতে ছিলো বলে তিনি জানান।

এ বিষয়ে বুড়িচং উপজেলা বন কর্মকর্তা এমেএম লুৎফুল্লাহ জানান, গাছটি মুল সড়কের ৫ ফুটের মধ্যে অবস্থিত ছিল। মদ্রাসার অধ্যক্ষ লোক দিয়ে গাছটিকে কেঁটে ফেলেছে। প্রাথমিক ভাবে মনে হয়েছে এটি সরকারী যায়গায় ছিলো। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বার্হী কর্মকর্তা পরবর্তী সিদ্ধান্ত দেবেন বলে জানান তিনি।

ইউটিউবে আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন: